ব্রেকিং নিউজ
সংবাদকর্মী আবশ্যক। আগ্রহীগণ সিভি, ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিসহ আবেদন করুন - onnodristynews@gmail.com/ news@onnodristy.com. মুঠোফোন : ০১৯১১২২০৪৪০/ ০১৭১০২২০৪৪০।

নওগাঁয় অসাধু সুদখোরদের চাপে ৪ জনের আত্নহত্যা-এলাকাছাড়া অনেকে, ভারতে গেছে ২ জন

আর, আর চৌধুরী, নওগাঁ ।।

মাদকের চেয়ে ও ভয়াভয় ক্ষতির শিকার হচ্ছেন অভাবী পরিবারের লোকজনরা। নওগাঁয় অসাধু সুদখো বা দাদন ব্যবসায়ীদের চড়া সুদের ফাঁদে পড়ে একের পর এক পরিবার নিস্ব হয়ে পড়ছে। এমনকি অসাদু সুদ ব্যবসায়ীদের চড়া সুদের টাকা দিতে না পেরে নওগাঁ জেলা সদর উপজেলার বলিহার ইউনিয়নেই আতœহত্যা করতে বাধ্য হয়েছেন ৩ জন। এছাড়া জেলার বিভিন্ন এলাকার অনেক লোকজন অসাদু সুদ ব্যবসায়ীদের চড়া সুদের টাকা দিতে না পেরে আত্বিয়-স্বজন ও বাড়ি ঘড় ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বলেও সুত্র জানিয়েছেন । তাছাও চড়া সুদ ব্যবসায়ীদের চাহিদামত টাকা দিতে না পারায় অনেকের বিরুদ্ধেই সুদারুরা চেকের মামলা  দেয়ায় একদিকে মামলার কারনে হচ্ছে হয়রানীর শিকার ও অপরদিকে চড়া সুদ টানতে গিয়ে জায়গাঁ-জমি হারিয়ে নিস্ব হয়ে পড়ছেন একের পর এক পরিবার।

অনুসন্ধানকালে বলিহার ইউনিয়নের বেশ কয়েকজন জানান, গত বছর থেকে চলতি জুলাই মাসের মধ্যেই এ ইউনিয়নের ফারাদপুর ও বলিহার গ্রামে অসাদু সুদ ব্যবসায়ীদের চাহিদামত চড়া সুদের টাকা দিতে না পেরে এবং তাদের চাপের মুখে আতœহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে ৩ জন। এছাড়া অসাদু সুদখোড় ব্যবসায়ীদের চাহিদা মত টাকা দিতে না পেরে পরিবারের লোকজন ও আত্বীয়-স্বজন কে ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে আরো ৯ জন। এবং ইতি মধ্যেই চড়া সুদের টাকা আদায় করতে চেকের মামলায় হয়রানীর শিকার ও কয়েকজন হচ্ছেন বলেও অনুসন্ধান চলাকালে তথ্য পাওয়া গেছে।

তারা আরো বলেন, যদি কোন ব্যাক্তি যে কোনভাবে একবার অসাদু চড়া সুদখোড় বা সুদ ব্যবসায়ীদের পাল্লায় পড়েন তাহলেই ঐ ব্যাক্তি কোন ভাবেই অসাদু সুদ ব্যবসায়ীদের কাছে খেকে আর রক্ষা পান না। কারন, অসাদু সুদ ব্যবসায়ী ও তাদের লোকজন অর্থ সংকটে থাকা বিপদগ্রস্থ লোকজনের অভাব ও সরলতার সুযোগ নিয়ে টাকা দেয়ার সময় ই টাকা গ্রহিতার কাছে থেকে ( টাকা ও তারিখের স্থান ফাঁকা) রেখে ব্যাংকের চেকে শুধুমাত্র স্বাক্ষর নেয়া সহ টাকা গ্রহীতার ন্যাশনাল আইডি কার্ডের ফটো কপি ও সুযোগ পেলে ফাঁকা ষ্ট্যাম্পে ও স্বাক্ষর নিয়ে রাখেন সুদখোররা বলেও জানিয়েছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে দুজন জানান, বর্তমানে নয়া কৌশলে সুদখোড়রা তাদের চড়া সুদের কারবার চালিয়ে যাচ্ছেন। তারা নিজেদের প্রশাসনের কাছে থেকে রক্ষা করতে নয়া কৌশল হিসেবে উপজেলা ও জেলা পর্যায়ের বিশেষ করে সমবায় এর নিবন্ধন নিয়ে (সমবায় সমিতির সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে) অন্তরালে ( সমিতির বাইরে) প্রতি ১০ হাজার টাকার বিপরিদে প্রতি সপ্তাহে ১ হাজার টাকা সুদ নিচ্ছেন সুদখোড়রা। ( এতে দেখা যাচ্ছে মাত্র ১০ হাজার টাকা সুদের উপর লাগিয়ে বছরে ৫২ সপ্তাহে ৫২ হাজার টাকা সুদ আদায় করার পর ও আসল ১০ হাজার টাকা ও আদায় করছেন) এক কথায় অসাধু সুদখোড়দের বিরুদ্ধে প্রশাসন আইনানুগ কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় দিনদিন সুদখোড়দের সংখ্যা বেড়েই চলেছে । ফলে এখন এলাকায় জমজমাটভাবে চলছে চড়া সুদের ব্যবসা।

আরো জানান, নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার নওহাটামোড় বাজার এলাকার সহ জেলার  বেশ কয়েকজন সুদখোড় বা দাদন ব্যবসায়ীরা নওগাঁ সদরের বলিহার এলাকার অভাবী ও নিরিহ লোকজনের সরলতার সুযোগ নিয়ে জমজমাটভাবে প্রকাশে চালিয়ে যাচ্ছেন চড়া সুদের ব্যবসা। প্রায় সব সুদ ব্যবসায়ীরাই ১০ হাজার টাকায় প্রতি সপ্তাহে ১ হাজার টাকা সুদ নেয়।

তথ্য অনুসন্ধানকালে এমন ভয়াভয় তথ্যই বেড়িয়ে এসেছে। হিসেব করে দেখা গেছে বিপদগ্রস্থ্য হয়ে ভুল করেও যদি কোন ব্যাক্তি এসব আসাধু সুদ ব্যবসায়ীদের পাল্লাই পড়ে একবার যদি ১০ হাজার টাকা গ্রহন করে সেই টাকার শুধু বছরে ৫২ সপ্তাহে ৫২ হাজার টাকা সুদ দিতে হয় গ্রহীতাদের। তারপর ও মূল ১০ হাজার টাকা সুদ ব্যবসায়ীরা পাওনাই থেকে যান। আর এ মহামারী চড়া সুদ দিতে গিয়েই একের পর এক পরিবার জায়গাঁ-জমি বিক্রি করে নিস্ব হয়ে পড়ছেন।

এ এলাকার অনেকেই চড়া সুদ টানতে গিয়ে জায়গাঁ-জমি বিক্রি করে সর্বশান্ত হয়ে পড়ার পর ও অসাদু সুদ ব্যবসায়ীদের দায়েরকৃত চেকের মামলা বা সুদ ব্যবসায়ী ও তাদের লেলিয়ে দেয়া লোকজনের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন অনেকেই। ইতি মধ্যে বলিহার ইউনিয়নেই আসাদু সুদ ব্যবসায়ী ও তাদের লেলিয়ে দেয়া লোকজনের ভয়ে ও চাপের মুখে গলায় দড়ির ফাঁস ও গ্যাস বড়ি খেয়ে গত বছর থেকে চলতি বছরের এখন পর্যন্ত ৩ জন আতœহত্যা করেছেন এবং একজন বিধবা নারী সহ ৯ জন পালিয়ে বেড়াচ্ছেন এছাড়াও একজন ভারতে পাড়ি জমিয়েছেন বলেই স্থানিয় সুত্র জানিয়েছেন।

অসাদু সুদ ব্যবসায়ী ও তাদের লেলিয়ে দেয়া লোকজনের চাপের মুখে বলিহার ইউনিয়নেই গলাই দড়ি ও গ্যাস বড়ি খেয়ে আতœহত্যাকারীরা হলেন, নওহাটামোড় (চৌমাশিয়া) বাজারের মেসার্স হক ফিলিং স্টেসনে যানবাহনে তৈল দেয়া কর্মচারী ফারাদপুর গ্রামের যুবক রুবেল হোসেন (২৫), বলিহার (কুরমইল) গ্রামের মৃত নগেন মন্ডলের ছেলে বাদল মন্ডল (৬০) ও একই গ্রামের মৃত সুবাস মালাকারের ছেলে তপন মালাকার (৩৮)। এছাড়া অসাদু সুদ ব্যবসায়ী ও তাদের লেলিয়ে দেয়া লোকজনের চাপের মুখে পালিয়ে বেড়ানোরা হলেন, বলিহার গ্রামের মৃত নারায়ন প্রাং এর স্ত্রী জোসনা বালা (৩২), বলিহার (কুরমইল) গ্রামের মৃত সন্তোষ সরকারের ছেলে পরিতোষ সরকার (৪৫), ননীহার গ্রামের হাসান আলীর ছেলে বেলাল হোসেন (৩৮), কশবা গ্রামের আশরাফ আলীর ছেলে আহসান হাবিব (৪০), ননীহার গ্রামের মৃত হরেন সরকারের ছেলে নয়ন সরকার (৩৬), প্রল্লাদ এর ছেলে নিবারন (৫০), কুড়মইল গ্রামের মৃত শীতল মন্ডলের ছেলে ভূতনাথ মন্ডল (৪৮), কিসমত কসবা গ্রামের মৃত কিনা রবিদাসের ছেলে মেঘো রবিদাস (৩২) ও ফারাদপুর গ্রামের রামপদর ছেলে উত্তম কুমার মন্ডল (৪৫)। এছাড়াও চড়া সুদের টাকা দিতে না পেরে সুদ ব্যবসায়ীদের চাপের মুখে বলিহার গ্রামের মৃত শিবনাথ কর্মকারের ছেলে দুলাল কর্মকার ভারতে পালিয়ে গেছে বলেও অনুসন্ধানকালে স্থানিয় সুত্র জানিয়েছেন।

একই রকম ঘটনা জেলার মহাদেবপুর উপজেলার নওহাটামোড় পুলিশ ফাঁড়ি এলাকায় ও ঘটেছে, নওহাটামোড় এলাকার ভীমপুর ইউনিয়নের বটতলি এলাকার একজন ব্যাক্তি ফোনে জানান, সুদারুদের চাপের মুখে গত বছর তেজপাইন গ্রামের সুদেব চন্দ্র (৪৭) নামের একজন গ্যাস বড়ি খেয়ে আতœহত্যা করতে বাধ্য হয়েছিলেন। সম্পতি নওহাটামোড় চৌমাশিয়া বাজারের ব্যবসায়ী ( সাইকেল মেকার) ও চৌমাশিয়া গ্রামের অনিল বৈরাগীর ছেলে বাবু বৈরাগী (৪১) সুদখোড়দের চাপের মুখে আত্বীয় স্বজন, ঘড়বাড়ি ও দেশ ছেড়ে ভারতে পাড়ি দিয়েছে বলেও গ্রামের কয়েকজন জানিয়েছেন।

নওহাটামোর এলাকার চৌমাশিয়া গ্রামের এনামুল ও আনিছুর রহমান ও বাগধানা গ্রামের আয়েন উদ্দীন নামের ৩ জন ব্যাক্তি ইতি মধ্যেই অসাদু সুদখোড় ব্যবসায়ীদের পাল্লায় পড়ে জায়গাঁ-জমি বিক্রি করে সর্বশান্ত হয়ে পড়েছেন। চৌমাশিয়া গ্রামের আনিছুর রহমান জানান, আমার মেয়ের বিয়ে দেয়ার সময় টাকা সংকট দেখা দেওয়ায় এবং জরুরীভাবে টাকার প্রয়োজন হওয়ায় আমি এলাকার একজন সুদ ব্যবসায়ীর কাছে থেকে মাত্র ২০ হাজার টাকা গ্রহন করলেও সেই সুদের টাকা টানতে গিয়ে আমার দিন মজুর কাজের ২ বছরের সব টাকা সুদ ব্যবসায়ীদের দেয়ার পরও আমি রক্ষা পায়নি , অবশেষে সুদ ব্যবসায়ীদের হাতেপায়ে ধরে ও রক্ষা না পেয়ে শেষে আমার শুধুমাত্র থাকার ঘড়টি রেখে ঘড়ের সামনের জায়গাঁ ( খলিয়ান) পর্যন্ত বিক্রি করে সুদ ব্যবসায়ীদের দেয়ার পরেই রক্ষা পেয়েছি।

একই গ্রামের এনামুল হক জানান, হঠাৎ করেই স্ত্রী অসুস্থ্য হয়ে পড়ায় আমি বে-কায়দায় পড়ে প্রথমে একজন সুদ ব্যবসায়ীর কাছে থেকে প্রতি সপ্তাহে ১ হাজার টাকা সুদ দেয়ার শর্তে ১০ হাজার টাকা গ্রহন করি কিন্তু আমি দিনমজুরী ও ট্রাক্টরে শ্রমিকের কাজ করে অল্পকিছু টাকা সংসার খরচ বাদদিয়ে সব টাকা সুদ ব্যবসায়ীকে দিয়ে ও আমি তাদের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছিলাম না পরে প্রথম সুদারুর পরামর্শে অপর এক সুদ ব্যাবসায়ীর কাছে থেকে একই শর্তে সুদের টাকা নিতে বাধ্য হয় এবং সেই টাকা দেয়ার পরও প্রথম সুদ ব্যবসায়ী আরো টাকা দাবী করে এভাবেই আমি সুদের বেড়াজালে জড়িয়ে পরি এক পর্যায়ে মাঠের একমাত্র সম্বল ১২ কাঠা আবাদী জমি বন্দকী রেখে সব টাকা সুদ ব্যবসায়ীদের দেয়ার পরও তারা আরো দের-দু লাখ টাকা আমার কাছে দাবি করলে এক সময় স্ত্রী-সন্তান ও স্বজনদের থেকে, সুদখোড় ব্যবসায়ীদের চাপের মুখে পালিয়ে থাকাকালে আমার স্ত্রীর বড় ভাইয়েরা আমার সাথে যোগাযোগ করে ঘটনাটি জানার পর স্থানিয় লোকজনকে নিয়ে বসে ফের নগদ ১ লাখ টাকা দেয়ার পরই আমার চেক, ষ্টাম্প ও ন্যাশনাল  আইডি কার্ড ফেরত পেয়েছি জানিয়ে তিনি আরো বলেন যত বড় বিপদ বা অর্থ সংকট এ হোক না কেন ভুল করেও আমার মত কোন মানুষ ঐ অসাদু দাদন বা সুদখোড় ব্যবসায়ীদের কাছে থেকে সুদের উপর যেন কোন টাকা গ্রহন না করেন।

উল্লেখ্য- শুধু বলিহার বা নওহাটামোড় বাজারে নয় নওগাঁ জেলার সর্বত্রই সাধারন মানুষের সরলতার ও আর্থিক সংকটের সুযোগ নিয়ে একই শ্রেনীর অসাধু দাদন বা সুদখোড় ব্যবসায়ীরা চড়া সুদের ব্যবস্যা প্রকাশ্যে চালিয়ে যাচ্ছে। অনুসন্ধানকালে এমন তথ্য ও পাওয়া গেছে যে অসাদু সুদ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে স্থানিয় প্রশাসন কোন পদক্ষেপ না নেয়ায় নওগাঁর বিভিন্ন এলাকায় দিনদিন সুদ ব্যবসায়ীদের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। ফলে সাধারন লোকজন একের পর এক সর্বশান্ত হয়ে পড়ছে আর অসাদু দাদন বা সুদ ব্যবসায়ীরা রাতারাতি লখফুলে কলাগাছ হওয়ার মত অবৈধ্য লাখ লাখ টাকার মালিক হচ্ছেন। উপরোক্ত বিষয়টির প্রতি আশুদৃষ্টি দিয়ে অবৈধ্য সুদ বা দাদন ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রশাসনের আশু পদক্ষেপ কামনা করেছেন সচেতন মহল।

 

 

Facebook Comments


শিরোনাম
নিউজিল্যান্ডে ভালো করার বিশ্বাস মাশরাফির পাওয়েলের আউট নিয়ে কী আপত্তি ছিল ব্র্যাথওয়েটের? পরতে পরতে মিরাজের মাশরাফি-বন্দনা ওমানে আঞ্জুমানে খোদ্দামুল মুসলেমীন আল সুয়েকের মিলাদুন্নবী (দঃ) ও অভিষেক অনুষ্ঠান এ্যাড. ইকবাল হাসান ঢাকাস্থ চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির প্রকাশনা সম্পাদক নির্বাচিত বেনাপোলে ৮টি স্বর্ণের বারসহ দুই পাচারকারী আটক  বাগেরহাট-৩ আসনে মাঠে সরব নৌকা, ধানের শীষ প্রচারণায় তেমন নেই যুবসমাজকে নিয়ে নৌকার বিজয় ছিনিয়ে আনতে হবে : খুলনা সিটি মেয়র খালেক সমৃদ্ধশালী দেশ গড়তে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রতি আহ্বান শেখ তন্ময়ের রাজশাহীর কলমা ইউপিতে ছাত্রলীগ আওয়ামীলীগের গণসংযোগ ঝিনাইদহে হামলা ও গণগ্রেফতারের অভিযোগ মজিদের পার্থর সঙ্গে সেলফি তুলতে তরুণদের হিড়িক আগামী নির্বাচনে স্বাধীনতাবিরোধী অশুভ শক্তি পরাজিত হবেই : কাদের ধানের শীষের প্রতিদ্বন্দ্বী আ’লীগ নয়, মনে হচ্ছে পুলিশ: মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল মাগুরা শ্রীপুরে আওয়ামীলীগের নির্বাচনী জনসভা শীতে পায়ের গোড়ালি ফাটার চিকিৎসা শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে সূর্য সন্তানদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বিনম্র শ্রদ্ধা একাডেমিতে বক্তৃতায় বলেছি, এখনও বলছি কেউ বেআইনি আদেশ মানবে না: ড. কামাল কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে কর্মী সমাবেশ কুমিল্লা কারাভান্তরে বিএনপির প্রার্থী মনিরুল হকের আমরণ অনশন মহেশপুরে বীরশ্রেষ্ট হামিদুর রহমান ডিগ্রী কলেজে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালীত পোরশা সীমান্তে বিএসএফ’র হাতে বাংলাদেশী আটক বেনাপোল বড়আচঁড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক পরীক্ষার ফল প্রকাশ ও পুরস্কার বিতরণী শার্শা থানা পুলিশের বিভিন্ন এলাকায় নির্বাচনী মহড়া যশোরের ঝিকরগাছায় বিএন পির অফিসে ভাংচুর
© All rights reserved © 2017 Onnodristy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com