নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিচ্ছে অন্যদৃষ্টি। আগ্রহীগন সিভি পাঠান- 0nnodrisrtynews@gmail.com
২৯ জুন ২০২২, ০১:৩১ পূর্বাহ্ন

শরীয়তপুরে গৃহবধুর রহস্য জনক মৃত্যু, হত্যার অভিযোগ মা-বাবার!

আব্দুল বারেক ভূঁইয়া
মঙ্গলবার, ১৭ মে, ২০২২, ১১:১৩ পূর্বাহ্ন

শরীয়তপুর জাজিরা উপজেলা বি-কে নগর ইউনিয়নের  সোবাহান উদ্দিন মাদবর কান্দি গ্রামে মনিকা বেগম (২২) নামে এক গৃহবধুর রহস্য জনক মৃত্যু। হত্যার অভিযোগ মনিকার মা-বাবার। গত ১০ মে মোঙ্গলবার স্বামী আব্দুস ছালাম (রিপন শেখ) এর বাড়িতে এই রহস্য জনক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে স্বামী আব্দুস ছালাম(রিপন শেখ) পলাতক রয়েছে।

জাজিরা উপজেলা নাওডোবা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডে ফকির কান্দি গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা মনিকার বাবা-মোস্তফা চৌকিদার মাতা-এলেজা বেগম ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, প্রায় চার বছর পূর্বে বি-কে নগর ইউনিয়নের সোবাহানউদ্দিন মাদবর কান্দি গ্রামের চাঁনমিয়া শেখ এর ছেলে মালয়েশিয়া প্রবাসী আব্দুস ছালাম (রিপন শেখ) এর সাথে মনিকার বিয়ে হয়। বিয়ের কয়েক মাস পরে স্বামী ছালাম শেখ মালয়েশিয়া চলে যাওয়ার পর।  মনিকার উপর শুরু হয় শ^শুর বাড়ির লোকজনের নানা প্রকার নির্যাতন। প্রায় তিন মাস পুর্বে স্বামী ছালাম শেখ বাংলাদেশে আসলে দফায় দফায় সালিস ব্যবস্থা হয়। গৃহবধু মনিকা এক সন্তানের জননী।

১০মে মঙ্গলবার সন্ধা ৭টায় মনিকার বাবার মোবাইল ফোনে ফোন দিয়ে জানানো হয় মনিকা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। মনিকার বাবা মোস্তফা চৌকিদার বলেন, আমি ও আমার পরিবারের লোকজন  গিয়ে দেখি আমার মেয়ের লাশ মাটিতে শায়িত। আমার মেয়ে আত্মহত্যা করেনি। আমার মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে এবং আমি হত্যাকারীদের শাস্তির দাবী করছি। আমি জাজিরা থানায় মামলা করার জন্য গিয়েছিলাম ওসি আমাকে বলেছেন লাশের ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসলে মামলা গ্রহন করবেন।

জাজিরা থানার অফিসার ইনচার্জ মিন্টু বৈধ্য এর সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলে তার কোন স্বাক্ষাৎ মেলেনি।

লাসের সুরত হাল তদন্তকারী কর্মকর্তা জাজিরা থানার সাব-ইন্সপেক্টর সোহাগ জানিয়েছেন, গৃহবধু মনিকা বেগমের লাস আমরা গিয়ে শায়িত অবস্থায় দেখিতে পাই এবং লাসের ময়না তদন্ত করার জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠাই। ময়না তদন্ত রিপোর্ট আসলে পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি শেয়ার করুন


আরো সংবাদ