ডিগ্রি কলেজের তৃতীয় শিক্ষকদের জন্য দূঃসংবাদ

অন্যদৃষ্টি অনলাইন
শুক্রবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩, ৮:৫৬ পূর্বাহ্ন

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যায়ন কর্তৃপক্ষের সুপারিশ করা ডিগ্রি কলেজের ৯২ জন ‘তৃতীয় শিক্ষকের’ এমপিও আবেদন নামঞ্জুর করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর। এছাড়া ২০১৬ সালের পর এনটিআরসিএ’র সুপারিশের বাইরে গভর্নিং বডির মাধ্যমে নিয়োগপ্রাপ্ত ডিগ্রি স্তরের তৃতীয় শিক্ষকদের এমপিও দেওয়া যাবে না বলে সিদ্ধান্ত  হয়েছে।

মঙ্গলবার (৫ সেপ্টেম্বর) মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ এ সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি করে।

অফিস আদেশে বলা হয়, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর থেকে পাঠানো ২০১৯ সালের পরে বেসরকারি কলেজে স্নাতক (পাস) পর্যায়ে এনটিআরসিএ’র মাধ্যমে নিয়োগ করা ৯২ জন এবং গভর্নিং বডির মাধ্যমে ২০১৬ সালের পর নিয়োগ পাওয়া তৃতীয় শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে ১২ এপ্রিল সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বেসরকারি কলেজে স্নাতক (পাস) পর্যায়ে এনটিআরসিএ কর্তৃক তৃতীয় গণবিজ্ঞিপ্তিতে নিয়োগ করা তালিকাভুক্ত প্রায় ৭৯ জন শিক্ষকের পক্ষে নওগাঁর পোরশা উপজেলার মোছা. গাঙ্গুরিয়া ডিগ্রি কলেজের রসায়নের প্রভাষক নিলুফার ইয়াসমিন  এবং নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার খলিলুর রহমান ডিগ্রি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের আবদুল্লাহ আল মামুন আবেদন করেন। ওই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তৃতীয় শিক্ষকের এমপিওভুক্তির বিষয়ে সভা অনুষ্ঠিত হয়।

গত ১২ এপ্রিল অনুষ্ঠত ওই সভায় সভাপতিত্ব করেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (মাধ্যমিক-২)।

সভার সিদ্ধান্ত

১. শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ২০১৬ সালের ১৯ অক্টোবর জারি করা পরিপত্র অনুযায়ী, ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে নিয়োগপ্রাপ্ত স্নাতক (পাস) পর্যায়ের তৃতীয় শিক্ষকরা এমপিওভুক্ত হবেন।

২. অর্থ বিভাগের ২০২১ সালের ৩১ আগস্টের নির্দেশনা অনুযায়ী, তৃতীয় শিক্ষক নিয়োগ করা হয়নি, এ ধরনের প্রতিষ্ঠানে তৃতীয় শিক্ষক নিয়োগ করা যাবে না।

৩. ২০১৯ সালে উচ্চ আদালতের রায় অনুযায়ী, তৃতীয় শিক্ষক এমপিওভুক্তির সুযোগ নেই।

৪. অর্থ বিভাগের ২০২১ সালের ৩১ আগস্টের নির্দেশনা  অনুযায়ী তৃতীয় শিক্ষক এমপিওভুক্তির সুযোগ না থাকায় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের পাঠানো এনটিআরসিএ’র মাধ্যমে ২০১৯ সাল থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত নিয়োগপ্রাপ্ত ৯২ জন তৃতীয় শিক্ষকের এমপিওভুক্তির জন্য দাখিল করা আবেদন না মঞ্জুর করা হলো।

৫.  শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ২০১৬ সালের ১৯ অক্টোবর জারি করা পরিপত্র অনুযায়ী, ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বরের পর নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত হওয়ার সুযোগ না থাকায় গভর্নিং বডি কর্তৃক ২০১৬ সালের পর ২০১৭-২০১৮ সালে নিয়োগপ্রাপ্ত তৃতীয় শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির জন্য ২ জন শিক্ষকের সই করা আবেদন না মঞ্জুর করা হলো।

৬.  শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ২০১৬ সালের ১৯ অক্টোবর জারি করা পরিপত্র অনুযায়ী, ২০১৬ সালের ৩১  ডিসেম্বরের পর নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত হওয়ার সুযোগ না থাকায় ২০১৯-২০২১ সাল পর্যন্ত নিয়োগকৃত তৃতীয় শিক্ষককে একইসঙ্গে এমপিওভুক্তির জন্য খুলনার পাইকগাছার কপিলমুনি কলেজের অর্থনীতির প্রভাষক উজ্জ্বল কুমার মণ্ডল এবং বগুড়ার শেরপুর উপজেলার জয়লাজুয়ান ডিগ্রি কলেজের বাংলার প্রভাষক মেহেদী হাসানের দাখিল করা আবেদন না মঞ্জুর করা হলো।

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি শেয়ার করুন


আরো সংবাদ
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com