নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিচ্ছে অন্যদৃষ্টি। আগ্রহীগন সিভি পাঠান- 0nnodrisrtynews@gmail.com
২৯ জুন ২০২২, ০১:১১ পূর্বাহ্ন

ঈদের পরে এসএসসি পরীক্ষা

অন্যদৃষ্টি ডেস্ক
বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন, ২০২২, ১২:৩৯ অপরাহ্ন

উত্তর ও উত্তরপূর্বাঞ্চলে সৃষ্ট ভায়বহ বন্যা পরিস্থিতির কারণে সারাদেশের স্থগিত হওয়া এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা আসন্ন ঈদুল আজহার পরে অনুষ্ঠিত হবে। ঈদের আগে পরীক্ষা শুরু করার সুযোগ দেখছে না শিক্ষা বোর্ডগুলো।

এদিকে পরীক্ষা পিছিয়ে যাওয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘পরীক্ষার্থীদের অটোপাস দেয়া হবে’ বলে নানা গুজব ছড়িয়েছে। তবে, এসএসসি পরীক্ষার্থীদের অটোপাস দেয়ার কোনো সুযোগ নেই বলে নিশ্চিত করেছেন শিক্ষা প্রশাসনের কর্তারা।

চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষা গত ১৯ জুন থেকে শুরু হওয়ার কথা থাকলেও বন্যায় পাঁচটি শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ফলে স্থগিত হয়েছে পরীক্ষা। উত্তর পূর্বাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে শুরু করলেও দেশের মধ্যাঞ্চলে বন্যা দেখা দিচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে এসএসসি পরীক্ষা কবে শুরু হবে তা নিয়ে নানা প্রশ্ন জন্ম নিয়েছে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মনে। এ কারণে ২০ লাখের বেশি পরীক্ষার্থী অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে।

এ নিয়ে জানতে চাইলে বুধবার দুপুরে দেশের শিক্ষা বোর্ডগুলোর চেয়ারম্যানদের নিয়ে গঠিত আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির সভাপতি এবং ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকার বলেন, এখন যে পরিস্থিতি নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। কিছু কিছু স্থানে পানি কমলেও শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা বা পরীক্ষা পরিস্থিতি এখনো সৃষ্টি হয়নি। তাতে মনে হচ্ছে না ঈদের আগে পরীক্ষা শুরু করতে পারবো। তবে, সার্বিকভাবে পরিস্থিতির উন্নতি হলে পরীক্ষা নতুন সূচি প্রকাশ করা হবে।

তিনি জানান, এসএসসি পরীক্ষা যে অবস্থায় স্থগিত হয়েছে সে অবস্থা থেকেই আমরা পরীক্ষা শুরু করবো। যেভাবে পরীক্ষা ও মানবণ্টন দেয়া হয়েছে সেভাবেই পরীক্ষা হবে। শুধু নতুন রুটিনে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অটোপাস নিয়ে নানা গুজব ছড়িয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে বোর্ড চেয়ারম্যান আরও বলেন, অটোপাসের কোনো সুযোগ নেই। যে মানবণ্টনে পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছিলো সে মানবণ্টনেই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে এসএসসি পরীক্ষা পিছিয়ে যাওয়া চলতি বছরের এইচএসসি পরীক্ষাও পেছাতে পারে বলেও এর আগে জানিয়েছিলেন অধ্যাপক তপন কুমার সরকার।

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি শেয়ার করুন


আরো সংবাদ