ইমরান খানের বাসভবনে পুলিশের তল্লাশি

অন্যদৃষ্টি অনলাইন
বৃহস্পতিবার, ০৮ জুন ২০২৩

পাঞ্জাবের লাহোরে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধী দল তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) পার্টির চেয়ারম্যান ইমরান খানের জামান পার্ক বাসভবনে তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ। তবে তারা কিছুই পায়নি, একেবারে খালি হাতে ফিরেছে।

শুক্রবার (১৯ মে) সন্ধ্যায় ইমরানের নিরাপত্তায় নিয়োজিত এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে ডন। প্রতিবেদন মতে, আদালতের ওয়ারেন্ট নিয়ে ইমরানের বাসভবনে তল্লাশি শুরু করে পুলিশের একটি প্রতিনিধি দল। এ সময় ইমরান খানের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তাও তাদের সঙ্গে ছিলেন।

তবে কিছুক্ষণ তল্লাশির পর তারা বের হয়ে আসেন। বের হয়ে আসার পর ইমরান খানের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা ইফতিখার ঘুমান সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমার ধারণা তারা বুঝতে পেরেছে যে, এখানে সন্দেহজনক কিছু নেই। পানি আর বিস্কুট ছাড়া তারা এখানে আর কিছুই খুঁজে পায়নি।’

ইফতিখার আরও বলেন, ‘আমরা আপনাদের সামনেই বাড়ির দরজা খুলে দিয়েছি। এখন তাদের জিজ্ঞেস করে দেখুন-কী খুঁজে পেয়েছে।’

বুধবার (১৭ মে) সকাল থেকে পিটিআই নেতার জামান পার্কের বাসভবনের সামনে টহল দিচ্ছিল পুলিশ। এদিন পিটিআই নেতা আশঙ্কা প্রকাশ করেন, আবারও গ্রেফতার হতে পারেন তিনি।

ইমরান খানের বাসভবনে ৩০-৪০ জন ‘সন্ত্রাসী’ লুকিয়ে রয়েছে দাবি করে তাদেরকে সরকারের হাতে তুলে দেয়ার জন্য ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেয় পাঞ্জাব পুলিশ।

এরপর বৃহস্পতিবার (১৮ মে) রাতে জামান পার্কের বাসভবনের পাশে অভিযান চালিয়ে বেশ কয়েকজনকে আটক করে পুলিশ। শুক্রবার (১৯ মে) ফের অভিযান চালিয়ে আরও ৬ জনকে আটক করা হয়। দিনভর নাটকীয়তার পর আদালতের এক ওয়ারেন্ট নিয়ে এদিন বিকেলে ইমরান খানের বাসভবনে তল্লাশি চালানো হয়।

এর আগে দুপুরে পাঞ্জাবের তথ্যমন্ত্রী আমির মীর সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে জানান, শহরের পুলিশ কমিশনারের নেতৃত্বে কয়েক শ পুলিশ ইমরান খানের বাসভবনে তল্লাশি অভিযান চালাবে।

আমির বলেন, ‘আমরা খবর পেয়েছি ওই বাড়িতে অন্তত ৪০ জন সন্ত্রাসী আত্মগোপন করে আছে। তাই বাড়িটিতে তল্লাশি চালাতে আমরা ৪০০ পুলিশ সদস্যকে পাঠানোর চিন্তা করছি।’

আল কাদির ট্রাস্ট মামলায় গত ৯ মে ইমরান খানকে গ্রেফতারের ঘটনায় দেশজুড়ে সহিংসতা শুরু হয়। ১২ মে আদালতের নির্দেশে ইমরানকে ছেড়ে দেয়ার আগ পর্যন্ত সহিংসতা অব্যাহত থাকে। এরপর সহিংসতায় অংশ নেয়া ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে অভিযানে নামে পুলিশ।

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি শেয়ার করুন


এ বিষয়ে আরো সংবাদ

Categories

%d bloggers like this:
%d bloggers like this: