নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিচ্ছে অন্যদৃষ্টি। আগ্রহীগন সিভি পাঠান- 0nnodrisrtynews@gmail.com
১০ মে ২০২১, ০১:৩১ অপরাহ্ন

আলেম-ওলামা ও মাওলানা সমাচার

প্রভাষক মো: নিজাম উদ্দিন
শনিবার, ১ মে, ২০২১, ৫:৫৬ অপরাহ্ন

আমাদের বাংলাদেশের ‘আলেম-ওলামা’ ও ‘মাওলানা’ শব্দের ব্যাপক প্রচলন শুধুমাত্র নির্দিষ্ট পরিমণ্ডলে রয়েছে। আসলে এ তিনটি শব্দের শাব্দিক অর্থ, তাৎপর্য বা সঠিক প্রয়োগ কতটুকু হচ্ছে! বা বুঝে শুনে হচ্ছে  কিনা, তা কি একবার ভেবে দেখেছেন কেউ ? না কেউ দেখেননি! দেখলেও বিষয়ের গভীরে প্রবেশ করে এর মর্মার্থ  বের করার চেষ্টা করেছেন বলে মনে হয় না। আমরা ‘নামাজ’ বলতে যেরকম ‘সালাত’কে বুঝি আর রোজা বলতে ‘সাওম’কে বুঝে থাকি।

তেমনি উল্লেখিত শব্দত্রয় দ্বারা কেবলমাত্র নির্দিষ্ট গোষ্ঠীকে বুঝি। আসুন শব্দ গুলো একটু বিশ্লেষণ করে দেখি-

আরবি ‘ইলম’ শব্দের অর্থ জানা বা জ্ঞান। আর যিনি জানেন বা জ্ঞান সম্পর্কে ধারণা রাখেন, তিনি হলেন ‘আলেম’, অর্থ জ্ঞানী। ‘আলেম’ শব্দটি ইসমে ফায়েল বা কর্তা একবচন। এর বহুবচন হলো- ‘ওলামা’ বা জ্ঞানীগণ।

ইংরেজি প্রতিশব্দ গুলো দাঁড়ায়- Wise, Learned, Expert, or Scholar। খ্রিস্টীয় যাজকদেরও Clerics বা আলেম বলে। আলেমগণ বিশেষ ধরনের পোশাক পরায় তাঁদেরকে Grownsman বলা হয়। ইসলাম ধর্মের আলেমগণও Grown পরে থাকে।

আর ‘আল্লামা’ হল যিনি শিখালেন। ইংরেজি- Taught, Qualified, Skilled শব্দ গুলো ব্যবহার করা যায়। আরবি ‘আলেম’ শব্দের কাছাকাছি আরেকটি শব্দ হলো ‘আলীম’ Well knowing অর্থ মহাজ্ঞানী, সর্বাধিক জ্ঞানী, যা কেবলমাত্র আল্লাহর জন্যে প্রযোজ্য।

এক্ষণে ইসলামি অধিবিদ্যগণের দৃষ্টিতে ‘আলেম’ শব্দের পারিভাষিক সংজ্ঞা তুলে ধরতে চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ।

ইসলামি বিষয় সম্পর্কে অবগত (Cognizant) এমন একজন বিশেষজ্ঞ জনাব নুরুল ইসলাম ওলীপুরীর মতে,

“সামাজিক দৃষ্টিতে যারা কোরআন-হাদীসের জ্ঞান রাখেন, তারা আলেম। আর আল্লাহর দৃষ্টিতে কোরআন-হাদিস যারা মেনে চলেন, তারাই কেবল আলেম।”

আরেকজন ইসলাম বিশারদ সালাউদ্দিন চাঁদপুরীর মতে, “যে যেমন জানে, সেই অনুযায়ী যে আমল করে সে হল আলেম।”

শাইখ মুখলেসুর রহমান মাদানী বলেন, “আলেম অর্থ যেকোনো বিষয়ে জ্ঞানী হতে পারেন, তবে যিনি কোরআন হাদীসের জ্ঞানে জ্ঞানান্বিত তিনি আলেম হিসেবে গণ্য হবেন।”

মুফতি আমির হামজা বলেন, “দুনিয়ায় যারা জ্ঞান অনুযায়ী আমল করে এরাই আল্লাহর কাছে আলেম। আর যার কাছে কোরআন আছে অথচ জানা সত্ত্বেও সত্যকে গোপন করে রাখে তারা আলেম নয়, জালেম।”

প্রফেসর ডঃ খন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর এর মতে, “যার ভিতরে যত বেশি ‘ইলম’ বা জ্ঞান, তার তত বেশি আমলই হল একজন আলেম হওয়ার জন্য যথেষ্ট।”

ইসলাম বিশারদ (Versed) সাইয়েদ কামাল উদ্দিন জাফরীর মতে, “যিনি কোরআন, হাদিস, ফিকহ,আরবি ভাষা জানেন তিনি আলেম। আর যারা ইংরেজি, গণিত, বিজ্ঞান জানে তারাও আলেম। অর্থাৎ দুনিয়াবি বিষয় যা মানুষের জীবনে প্রত্যেক ক্ষেত্রে প্রয়োজন এ ধরনের জ্ঞানী যারা তারা সকলেই আলেম।” তিনি বলেন, জ্ঞানকে Qualify সীমাবদ্ধ করা বা বিশেষণ দেয়া যাবে না বরং জ্ঞান হল নিরঙ্কুশ, পরম (Absolute, Ultimate, Utmost,  Maximum)।

বিশ্ব বিখ্যাত তুলনামূলক ধর্মতাত্ত্বিক ডক্টর জাকির নায়েকের মতে,

“তাকে জিজ্ঞাসা করতে হবে যে সে কোন বিষয়ে জ্ঞানী। যেমন কুরআন যদি চিকিৎসা বিষয়ে বলে, তা বোঝার জন্য যেতে হবে একজন ডাক্তারের কাছে। যদি বিজ্ঞান বিষয়ে বলে, তাহলে বিজ্ঞানীর কাছ থেকে জানতে হবে। আর সাধারণ অর্থ বুঝতে হলে, তাকে একজন আরবি বিশারদের কাছ থেকে জানতে হবে। তাহলে এখানে ডাক্তার, বিজ্ঞানী এবং আরবি বিশারদ সকলেই আলেম।”

তাই বলা যায়, জগদ্বিখ্যাত বিজ্ঞানবিষয়ক আলেম আইনস্টাইন, নিউটন এবং মহাকাশ বিষয়ক আলেম স্টিফেন হকিং তাদের স্ব স্ব কর্মে পৃথিবীতে অমর হয়ে আছেন। এভাবে বললে কি কোনো ধরনের ভুল হওয়ার সম্ভাবনা আছে ? বিষয়টা ভেবে দেখার দাবি রাখে।

এবার আসা যাক ‘মাওলানা’ নিয়ে কিছুকথা বলা যায়। শব্দটিতে দুটো অংশ ‘মাওলা’ আর ‘না’। ‘মাওলা’ শব্দের অর্থ অভিভাবক তথা Guardian, Protector, Caretaker, Defender ইত্যাদি। স্বয়ং প্রভু আল্লাহকে অভিভাবক হিসেবে চিত্রিত করে কোরআনে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘অনিমাল মাওলা ওয়া নিমাল নাসির’ অর্থাৎ তিনি কতইনা উত্তম অভিভাবক এবং উত্তম সাহায্যকারী। আর ‘না’ হল জমিরের ‘না’ অর্থ আমাদের বা Our/Ours।  সুতরাং ‘মাওলানা’ শব্দের অর্থ আমাদের অভিভাবক। তাহলে আমরা যে, যাকে-তাকে এবং কখনো নিজের নামের আগে ‘মাওলানা’ ব্যবহার করি বা লিখি তা কতটুকু যুক্তিযুক্ত তাও ভেবে দেখা দরকার আছে বলে মনে করি।

এখানে আরেকটু বলে নেওয়া যায়, যদি ‘মাওলা’ শব্দের ইংরেজি প্রতিশব্দ Protector ধরা হয়, তাহলে এর অর্থ দাঁড়ায় রাজা বা রাজ্যের অভিভাবক। সেক্ষেত্রে দেশের কর্ণধার মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ক্ষেত্রেও তো ‘মাওলানা’ শব্দের প্রয়োগ শুদ্ধ বলে বিবেচিত হতে পারে।

পরিশেষে বলা যায় আলেম-ওলামা এবং মাওলানা শব্দের যেভাবে যত্রতত্র ব্যবহার হচ্ছে বা ব্যবহার করছি, তাতে শব্দগুলোর সঠিক মাহাত্ম্য ফুটে উঠছে না ! আমরা ঢালাওভাবে শব্দগুলো ব্যবহার না করে বরং সত্যিকারের জ্ঞানী (Scholar) যারা তাঁদের নামের সাথে শব্দগুলো ব্যবহার করে এর গুরুত্ব এবং মাহাত্ম্য তুলে ধরার চেষ্টা করি। আল্লাহ আমাদের সকলকে সঠিক বুঝ দানের তৌফিক দিন, আমিন।

লেখক: শিক্ষক, সাংবাদিক

তথ্য সূত্র

১. ইউটিউব থেকে নেয়া তথ্য

২. বোকাবুলারি

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো সংবাদ