১৯ অগাস্ট ২০১৮ || রবিবার || ০১:৫১ অপরাহ্ন

ঝিনাইদহের মহেশপুরে চাকরিপ্রার্থী দেলোয়ারের বিরুদ্ধে বয়স জালিয়াতির অভিযোগ

নজরুল ইসলাম, কোটচাঁদপুর, ঝিনাইদহ।।

২৮ জুন ২০১৮, ঝিনাইদহের  মহেশপুর উপজেলার ভালাইপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম প্রহরী নিয়োগ পরীক্ষায় প্রার্থী দেলোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে তার বয়স বা জন্ম তারিখ জালিয়াতির  অভিযোগ উঠেছে।

বর্তমানে দেলোয়ার হোসেন তার বয়স জালিয়াতির ঘটনা ঢাকতে একটি বিশেষ মহলে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে দেনদরবার চালিয়ে যাচ্ছে এবং পাশাপাশি সরকারী চাকুরীর বয়স বিধি লংঙ্ঘন করে ওই পদে নিযোগ পেতে পায়তারা করছেন বলে একাধিক সুত্র থেকে জানা যাচ্ছে ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে থেকে জানাগেছে এ উপজেলায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বেশ কিছুদিন আগে ২৬টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২৬ জন দপ্তরী কাম প্রহরী পদে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে।

এই বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী আগ্রহী প্রার্থীরা আবেদন করে এবং গত ২১ জুন মৌখিক পরীক্ষা শেষ হয় । ইতোমধ্যে বেশীর ভাগ স্কুলে নিয়োগ চুড়ান্ত  হয়েছে । ইতি মধ্যে  ভালাইপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিয়োগটির প্রার্থী দেলোয়ার হোসেনের তার বয়স জালিয়াতির ঘটনা ফাঁস হয়ে যাওয়ায় ওই নিয়োগটি ঝুলন্ত অবস্থায়  আছে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

ঐ স্কুলে একজন দপ্তরী কাম প্রহরী নিয়োগের বিপরীতে মোট ১৪ জন প্রার্থী আবেদন করে। এরমধ্যে ৮জন পরীক্ষায় অংশ নেয়। কিন্তু শেষ মেষ মৌখিক পরীক্ষায় ভাইলাপুর গ্রামের মশিয়ার রহমানের ছেলে জসিম উদ্দিন,একই গ্রামের জিল্লুর রহমানের ছেলে দেলোয়ার হোসেন ও আব্দুল কাদেরের ছেলে মো: মিলন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়। এদের মধ্যে মো: দেলোয়র হোসেন তার বয়স জালিয়াতির বিষয়টি ধরা পড়ে।

এ বিষয়টি ফাঁস হবার পর উপজেলার সচেতন মহলে  আলোচনার ঝড় উঠেছে।

সূত্র আরো জানায় দেলোয়ার হোসেনের  ৪৪০৮৩৯০০০২৭২ নং ভোটার তালিকায় উল্লেখ রয়েছে তার জন্ম তারিখ ৫ অক্টোবর ১৯৭৯ । সেই হিসেবে বর্তমান তার বয়স ৩৮ বছর ছাড়িয়ে গেছে। অথচ সরকারী চাকুরীর বিধিমালায় রয়েছে যে কোন সরকারী চাকুরীর ক্ষেত্রে বয়স বা সময় সীমা সর্বোচ্চ ৩২ বছর হতে হবে ।

এবিষয়ে ভালাইপুর স্কুলের প্রধান শিক্ষক নন্দে দোলাল কবিরাজ বলেন দেলোয়ার হোসেন তার বয়স জালিয়াতি করে প্রায় ৬/৭ বছর কম করেছে এই ব্যাপারে বিভিন্ন লোকজন আমাকে জানিয়েছে ।তিনি এসময় আরও বলেন,এই বিষয়টি আমি অবশ্যই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসার এবং আমার বিদ্যালয়ের সভাপতি আজিজুর রহমান অবগত করবো।

ভালাইপুর স্কুলের সভাপতি আজিজুর রহমান আজিজ জানান,দপ্তরী নিয়াগ পরীক্ষার প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন যদি তার বয়স বাড়ায় বা কমায় এটা তার ব্যাপার আর বিষয়টি তো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ দেখবেন ।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বলেন দেলোয়ার হোসেন আবেদনের সময় জন্ম নিবন্ধন কার্ড দিয়ে আবেদন করে। সেখানে ভোটার আইডি কার্ড / জাতিয় পরিচয় পত্র সংযুক্ত ছিল না। তার বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ উঠায় আজ কদিন ভালাইপুর স্কুলের দপ্তরী নিয়োগটি স্থগিত রয়েছে ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম বলেন আমি উপর মহলের চাপে রয়েছি তাই সব কিছু বলা সম্ভব হচ্ছে না তবে বয়স জালিয়াতির বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।

এঘটনায় ঝিনাইদাহ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আক্তারুজ্জামান বলেন মহেশপুর উপজেলার ভালাই সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দেলোয়ার হোসেন নামে যে প্রার্থীর বিরুদ্ধে বয়স জালিয়াতির অভিযোগ উঠেছে এ বিষয়ে আমাকে কেউ জানায়নি । তবে কেউ অভিযোগ করলে বিষয়টি অবশ্যই দেখা হবে । এব্যাপারে দেলোয়ার হোসেনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি ।

 

Facebook Comments


© All rights reserved © 2017 Onnodristy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com