ব্রেকিং নিউজ
সংবাদকর্মী আবশ্যক। আগ্রহীগণ সিভি, ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিসহ আবেদন করুন - onnodristynews@gmail.com/ news@onnodristy.com. মুঠোফোন : ০১৯১১২২০৪৪০/ ০১৭১০২২০৪৪০।

শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণ প্রয়োজন কেন?

মোঃ সাইদুল হাসান সেলিম।।

দেশের সরকারি হিসেবে ভর্তিকৃত (প্রাথমিক থেকে উচ্চ শিক্ষা) স্তরের শিক্ষার্থীরা প্রতিবছর ৬৩% ঝরে পড়ে। বিষয়টি হাস‍্যকর বা মামুলি ব্যাপার না বরং সর্বোচ্চ গুরুত্বসহকারে ভাবনার বিষয়। এই ঝরে পড়া বিপুল পরিমাণ শিক্ষার্থীরা কোথায় অবস্থান করছে, নিশ্চয়ই আমার আপনার পরিবারে তথা সমাজে? অলস মস্তিষ্ক শয়তানের কারখানা, এরাই সমাজে নানাবিধ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে এবং করবে। এদের পুনরায় মূল শিক্ষাধারায়  ফিরিয়ে আনা প্রয়োজন। আমাদের প্রচলিত শিক্ষাব্যবস্থার ত্রুটি বিচ্যুতি চিহ্নিত করে, সংশোধনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ জরুরি।

আমাদের শিক্ষাব্যবস্থায় সরকারি বেসরকারি শিক্ষা ব‍্যয় আকাশ পাতাল ফারাক। যেখানে সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ষষ্ঠ শ্রেণীর একজন শিক্ষার্থীর মাসিক বেতন ৭ টাকা মাত্র, সেখানে একটি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একই শ্রেনীর শিক্ষার্থীর মাসিক বেতন ১৫০ টাকা থেকে ২০০০ টাকা। অথচ শহরকেন্দ্রিক সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লেখাপড়া করে সরকারি কর্মকর্তা ও সমাজের ধনিক ও সম্পদশালী শ্রেণীর মানুষের সন্তানরা। যেখানে সম্পদশালী শিক্ষার্থীদের নাম মাত্র খরচে সরকারি প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা লাভের সুযোগ দেয়া হচ্ছে। এতে দেশের অসচ্ছল প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সন্তানদের সরকারি প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা লাভের সুযোগ থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। বাধ‍্য হয়েই তাঁরা অধিক খরচে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লেখা পড়া করতে বাধ্য হয় এবং অর্থাভাবে ঝরে পড়ছে।

অপরদিকে আমাদের সামাজিক জীবনব‍্যবস্থায় যৌথ পরিবারগুলো ভেংগে একক পরিবারে জীবনযাপনে সাচ্ছন্দ্য বোধ করে। ফলে একক পরিবারে উপার্জনক্ষম ব্যক্তি থাকে সাধারণত একজনই, তাঁরা এই দূর্মুল্লের বাজারে পরিবারের ভরণপোষণের পর দুটি বা তিনটি সন্তানের শিক্ষা ব‍্যয় নির্বাহ করতে পারছে না। বেসরকারি শিক্ষার ব‍্যয় সাধারণ মানুষের সীমা অতিক্রম করেছে। এতে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সন্তানরা অধিক হারে শিক্ষা বঞ্চিত হচ্ছে। দেশের বিশাল অঙ্কের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে শিক্ষা বঞ্চিত রেখে জাতীয় উন্নয়ন অসম্ভব। আমাদের দেশে একমুখী শিক্ষাব্যবস্থা প্রবর্তনে এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের মাধ্যমে ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের শিক্ষার মূল ধারায় ফিরিয়ে আনতে এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সন্তানদের স্বল্প খরচে শিক্ষা লাভের সুযোগ নিশ্চিত করতে হবে।

৫ লক্ষ শিক্ষক পরিবার, সাথে ২কোটি শিক্ষার্থী + ২ কোটি অভিভাবক, জাতীয়করণের দাবি গণদাবিতে পরিনত করতে আমাদেরই অগ্রনী ভূমিকা পালন করতে হবে। এটা শুধু শিক্ষকদের বেতন ভাতা বৃদ্ধির কোন আন্দোলন নয়, এই আন্দোলন মানসম্মত শিক্ষা ও ঝরে পড়া শিক্ষা বঞ্চিত প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর শিক্ষার অধিকার আদায়ের আন্দোলন। আমি এই ন‍্যয় ও যৌক্তিক আন্দোলনে আমৃত্যু কাজ করে যাব, কারণ আমার উচ্চ শিক্ষা অর্জনে ঐ অসচ্ছল প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মানুষের কষ্টার্জিত অর্থের অনুদান রয়েছে। তাই ঐ সাধারণ মানুষের সন্তানদেরও স্বল্প খরচে  শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করে দিতে হবে, এটা আমার ঋণ পরিশোধের অংগীকার।

১৩/০৮/২০১৮ দেশের  মাধ্যমিক শিক্ষা (দ্বাদশ শ্রেণি) পর্যন্ত শিক্ষার মানোন্নয়নে বিশ্ব ব্যাংক ৫২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। শিক্ষার মানোন্নয়নে যেখানে বিশ্ব ব্যাংক কাজ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, সেখানে আমাদের দেশের এক শ্রেণীর কুটিল বুদ্ধি বিক্রেতারা বলছেন শিক্ষা মানোন্নয়নের পরিমাপের একক কী? তাদের উদ্দেশ্য আমার প্রশ্ন, বুদ্ধি পরিমাপের একক কী?

আমাদের দেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে বেসরকারি খাতে রেখে পণ্যে পরিণত করা হয়েছে। দেশের সীমিত অর্থনীতির কথা বলে বলে শিক্ষাকে অবহেলিত করে রাখা হয়েছে যুগের পর যুগ। দেশের এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণে অর্থনৈতিক অভাব নয়, সরকারি নীতিনির্ধারকদের সদিচ্ছার অভাব। শুধুমাত্র শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ঘুষ দূর্নীতি অনিয়ম ও অপচয় রোধ করা সম্ভব হলেই একযোগে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত শিক্ষা স্তরকে জাতীয়করণ করা এখনই সম্ভব। বেসরকারি শিক্ষকদের পৌনে দুই শ’বছরের পুরাতন অনুদান প্রথার বিলুপ্তি ঘটাতে হবে। শিক্ষকতা পেশাকে মর্যাদাপূর্ণ ও আকর্ষণীয় বেতন-ভাতা প্রদানের মাধ্যমে মেধাবীদের আকৃষ্ট করার কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে হবে। মানসম্মত শিক্ষায় চাই দক্ষ ও গুনগত মানের শিক্ষক। শিক্ষাই জাতীয় উন্নয়নের প্রধান চাবিকাঠি। চাই মানোন্নত শিক্ষা, চাই শিক্ষাব্যবস্থার জাতীয়করণ। এই শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণ  আন্দোলনে অগ্রনী ও বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করতে হবে শিক্ষকদেরই। দেশের সকল শ্রেনী পেশার মানুষদের ও শিক্ষক কর্মচারীদের, বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারি ফোরামের ন‍্যয়সংগত যৌক্তিক দাবির সাথে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার বিনীত আহ্বান জানাই।

বাংলাদেশ ব‍্যংকের গভর্নরের বাজার থেকে তোলা, একশত পঞ্চাশটি টাকার ঋণ পরিশোধ করতে না পারার আক্ষেপ থেকে শিক্ষা নিয়ে আসুন, জাতীয়করণ আন্দোলনে অংশ নিয়ে আমাদের দায় বা ঋণ কিছুটা হলেও পরিশোধ করি।

 

লেখক

সভাপতি

বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারি ফোরাম বাংলাদেশ।

Facebook Comments

Please Share This Post in Your Social Media

শিরোনাম
ঝিনাইদহে সর্প দংশনে এক ছাত্রের মৃত্যু !     আস্কারা  লক্ষ্মীপুরে কম্পিউটার দোকানদাররে গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার চিরিরবন্দরে ডলার কিনতে এসে প্রতারক চক্রের হাতে প্রতারনার শিকার, থানায় অভিযোগ সিরাজগঞ্জের রায়জগঞ্জ সলঙ্গায় পাটের আঁশ ছাড়ানোর ধুম কুষ্টিয়ার মিরপুরের আমবাড়ীয়া ইউনিয়নে স্মার্ট কার্ড বিতরণ ঝিনাইদহে জেলা কৃষক লীগের আয়োজনে ২১ আগস্টে শহীদদের স্মরণে শোক সভা ও মিলাদ মাহফিল অকবি লক্ষ্মীপুরের চররুহিতাবাসীর দোরগোড়ায় ইসলামী ব্যাংক মোংলায় বিএনপির নেতার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক তদন্তে এসে কেন্দ্রীয় নেতা অংশ দিলো ভুড়িভোঁজে ঝিনাইদহে ধর্ষন মামলার আসামি গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেফতার     ইরানকে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করতে দেয়া উচিত নয় : হুক ‘একটি নক্ষত্র আসে; তারপর একা পায়ে চ’লে ঝাউয়ের কিনার ঘেঁষে হেমন্তের তারাভরা রাতে।’ দর বাড়ার শীর্ষে ফ্যামিলিটেক্স বিডি লিমিটেড ক্ষমতা বাড়ছে না এনটিআরসিএর, শক্তিশালী হচ্ছে ম্যানেজিং কমিটি ভিআইপি সেই কলঙ্কিত ও ভয়াবহ ২১ শে আগস্ট! এবার ৩ হাজার টাকার স্টেথিসকোপের দাম ১ লাখ ১২ হাজার কুষ্টিয়ার মিরপুরে মোবাইলকোর্টে ১ জনের ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড যশোর বিআরটিএ কার্যালয়, ঘুষ ছাড়া সেবা মেলে না যেখানে নওগাঁয় সাংবাদিকদের সাথে জেলা প্রশাসকের মতবিনিময় নওগাঁয় করল্যার চাষে স্বাবলম্বী অনেক কৃষক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে ভুয়া এনজিওর নামে লক্ষাধিক টাকা আত্মসাৎ ঝিনাইদহ   জেলা বিএনপি’র ৫১ সদস্য বিশিষ্ট আহব্বায়ক  কমিটির  অনুমোদন  নাসিরনগরে প্রধান শিক্ষকের উপর হামলা
© All rights reserved © 2017 Onnodristy.Com
Theme Download From ThemesBazar.Com