ব্রেকিং নিউজ
সংবাদকর্মী আবশ্যক। আগ্রহীগণ সিভি, ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিসহ আবেদন করুন - onnodristynews@gmail.com/ news@onnodristy.com. মুঠোফোন : ০১৯১১২২০৪৪০/ ০১৭১০২২০৪৪০।

অবসর সুবিধা বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টে বর্ধিত চাঁদা কর্তন আইনের পরিপন্থী ও অমানবিক

মোঃ সাইদুল হাসান সেলিম।।

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারীদের কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করা হয় ১৯৯০ সালে। বাংলাদেশ গেজেট ফেব্রুয়ারি -১৯৯০ সালের ২৮নং আইনে বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের কল্যাণ ট্রাস্ট স্থাপন করা হয়।

কল্যাণ ট্রাস্টের ২৮ নং আইনের ১০ নং ক্রমিকের (১) বলা হয়েছে শিক্ষক কর্মচারীরা প্রবিধান দ্বারা নির্ধারিত হারে চাঁদা প্রদান করিবে অর্থ্যাৎ শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন স্কেলের ২ শতাংশ হারে চাঁদা নির্ধারিত হয়।

ধারা ৯। ট্রাস্টের তহবিল গঠন (৩) এর

(ক) উপধারা (২) এর অধীন সরকারের এককালীন প্রদেয় অর্থের সুদ বা মুনাফা।

(খ) সরকার কর্তৃক প্রদত্ত অনুদান।

(গ) শিক্ষক কর্মচারী কর্তৃক প্রদত্ত চাঁদা।

(ঘ) শিক্ষার্থীদের চাঁদা। (যা ২০০২ সালের সংশোধনী আইন দ্বারা রহিতকরণ করা হয়)
(ঙ) স্থানীয় সংগঠন সংস্থা কর্তৃক অনুদান।

(চ) ট্রাস্টের অন্যান্য উৎস থেকে আয়।

উল্লেখিত আইনানুযায়ী বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের কল্যাণ ট্রাস্ট হতে নিম্নরূপ আর্থিক সুবিধা প্রদান করা হবে।
৮ এর (১) চাঁদা প্রদানকারী কোন শিক্ষক কর্মচারী অবসর গ্রহণ করিলে তিনি যত বৎসর শিক্ষকতা করিয়াছেন তত মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ এককালীন প্রাপ্য হবেন। (পরবর্তীতে ২১ জুন- ২০০৬ সংশোধনীতে যত বছর কল্যাণ ট্রাস্টে চাঁদা কর্তন করিয়াছেন বাক্যটি যুক্ত করা হয়)
বাংলাদেশ গেজেট, প্রবিধানমালা ১ নভেম্বর ১৯৯৯ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, এই সুবিধা ১লা জুলাই ১৯৯০ তারিখ হতে নির্ধারণ করা হয়। অথচ শিক্ষক কর্মচারীদের এই সুবিধা থেকে বঞ্চিত করার অভিপ্রায়ে উল্লিখিত বাক্যটি সংযুক্ত করা হয়েছে। (শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্ট সংশোধন আইন-২০০২ তে ১৯৯০ সালের ২৮ নং আইনের ১১ ধারা বিলুপ্ত করায় শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে চাঁদা আদায় রহিতকরণ করা হয়।)
১৯৯০ সালের ২৮নং আইন, ১৯৯৯ প্রবিধানমালা এবং ২০০২ সালের সংশোধন আইনের কোথাও শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন থেকে অতিরিক্ত চাঁদা আদায় বাঁ কর্তনের আইনগত ভিত্তি নেই।

অবসর সুবিধা বোর্ড:

অনুরূপভাবে ১লা ডিসেম্বর ২০০২ সাল থেকে অবসর সুবিধা বোর্ড গঠনের ২৭নং আইন বলবৎ করা হয়। ২০০৫ সালের ১৭ জুলাই প্রবিধানমালা প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করা হয় ৮ই জানুয়ারি ২০০৫ তারিখ। উক্ত আইনের ৮ নং ধারায় শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন স্কেলের ৪% চাঁদা নির্ধারণ করা হয়। বেসরকারি শিক্ষককর্মচারীদের অবসর সুবিধা বোর্ড হতে অবসর পরবর্তী এককালীন নিরবচ্ছিন্ন ২৫ বছর চাকরির পর ৭৫ মাসের সর্বশেষ স্কেলে সুবিধা প্রাপ্ত হবেন। ২০০২ সালের ২৭ নং আইনের কোথাও শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন থেকে অতিরিক্ত ২% কর্তন করা হবে বাঁ যাবে তার কোন উল্লেখ নেই।
অবসর সুবিধা বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টে ১৯৯০ সালের ২৮ নং আইন এবং ২০০২ সালের ২৭ নং আইন এবং ২০০৫ সালের প্রবিধানমালা অনুসারে অবসর সুবিধা বোর্ডও কল্যাণ ট্রাস্টে বর্ধিত সুবিধা না দিয়ে, শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন থেকে অতিরিক্ত ২% + ২% = ৪% চাঁদা কর্তন সম্পুর্ন বেআইনি ও অমানবিক।

অবিলম্বে অবসর সুবিধা বোর্ড এবং কল্যাণ ট্রাস্টে অতিরিক্ত ২%+২%= ৪% কর্তন বন্ধের জোর দাবি জানাচ্ছি। কল্যাণট্রাস্ট গঠনকালীন শিক্ষক কর্মচারীদের বেতনথেকে চাঁদা আদায় পরবর্তী, ঘাটতি পূরণে সরকার ভর্তুকি বাঁ অনুদান সহায়তার স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে। অবসর সুবিধা বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টের ঘাটতি পূরণে বিকল্প উপায় না খুঁজে শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন থেকে অতিরিক্ত কর্তন অমানবিক ও বেআইনি। সরকার থেকে বার্ষিক অনুদান বাঁ ভর্তুকি না এনে শিক্ষক কর্মচারীদেরবেতন থেকে অতিরিক্ত কর্তনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থার ৯৭% শিক্ষার গুরুদায়িত্ব পালন করেন বেসরকারি শিক্ষকরা। দেশ আজকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে শামিল হয়েছে। অপ্রতিরোধ্য সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় দেশ মধ্যম আয়ের দেশে দিকে ধাবিত হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার একান্ত সদিচ্ছায় জাতীয় শিক্ষানীতি প্রণয়ন করা হয়েছে। নতুন নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়েছে। শিক্ষিতের হার ৩০ শতাংশ থেকে বেড়ে ৭২ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। শতভাগ শিক্ষার্থীরা স্কুলে ভর্তি হচ্ছে। আমাদের লক্ষ্য গুণগত মানের শিক্ষায় শতভাগ শিক্ষিত জনগোষ্ঠীর ডিজিটাল ও সমৃদ্ধ দেশ হবে বাংলাদেশ।

এই সকল উন্নয়ন অগ্রগতির পিছনে শিক্ষক সমাজের ভূমিকা অপরিসীম। জাতীয় উন্নয়ন অগ্রগতিতেৎ ৯৭ শতাংশ বেসরকারি শিক্ষকদের অবদান অস্বীকার করার কোনও সুযোগ নেই।

এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের মাধ্যমে শিক্ষকদের বঞ্চনা বৈষম্য দূরীকরণ ও রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থায় পেনশন সুবিধা নিশ্চিত করা রাষ্ট্রের সাংবিধানিক দায়িত্ব।

পরিশেষে বলবো বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের অবসর সুবিধা বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টে অতিরিক্ত ৪% কর্তনের ফলে শিক্ষকদের মাঝে যে ক্ষোভের সৃষ্টি করা হয়েছে তা প্রশমিত করতে অবিলম্বে অতিরিক্ত কর্তনের প্রজ্ঞাপন বাতিল বাঁ বর্ধিত সুবিধা প্রদানের জোর দাবি জানাচ্ছি। বিশ্বমানের আধুনিক ও গুনগত মানের শিক্ষা নিশ্চিত করতে হলে এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণ-ই একমাত্র উপায়।

 

লেখক

সভাপতি
বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরাম।

Facebook Comments


Leave a Reply

শিরোনাম
আলিয়া ভাটের বিরুদ্ধে ‘পুরস্কার চুরি’র অভিযোগ বিচ্ছেদের পর আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলাম : নেহা কক্কর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার জামিন শুনানি শুরু চৌগাছায় নববধুকে ধর্ষণে অভিযুক্ত দুই যুবক গ্রেফতার যশোরের সদর ফাঁড়ি পুলিশের চাঁদাবাজিতে পতিতা পল্লীর যৌনকর্মীরা অসহায় বাগআঁচড়ায় দৈনিক স্পন্দন এর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত  বাবার লাশ কফিনবন্দি লাশ রেখে ছেলে গেল বিয়ে করতে লোকসভার পর রাজ্যসভাতেও পাশ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল মাগুরায় আন্তঃ জেলা ডাকাত দলের ৪ সদস্য আটক খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি আজ কেরানীগঞ্জে প্লাস্টিক কারখানার আগুনে নিহত ১, দগ্ধ ৩৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক মনিরামপুরে হরিহর নদীর পাড় তৈরির মাটি বিক্রির অভিযোগ ঝিকরগাছায় ডিজিটাল পোস্ট ই-সেন্টারের উদ্যোক্তাদের সাথে ডিপিএমজির সভা অনুষ্ঠিত প্রিয়াঙ্কা-ফারহানের অন্তরঙ্গ শ্যুটিং মুহূর্ত ভাইরাল দৃশ্যমান হল ২৭০০ মিটার পদ্মা সেতু কুষ্ঠরোগীদের দেখে দূর-দূর করবেন না: প্রধানমন্ত্রী বেনাপোল সাংবাদিক আটকের পর নিজেকে বাঁচাতে এবার কামালের থানায় জিডি ঝিনাইদহ জেলার শ্রেষ্ঠ সহকারি শিক্ষক টুটুল আগামীকাল বরগুনায় ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জোছনা উৎসব! খুলনা মহানগর আ’লীগের সভাপতি কে অভিনন্দন যানিয়েছেন মোংলা উপজেলা ও পৌর নেতাকর্মীরা জ্যঁ কুয়ে একজন বিমান হাইজ্যাকার! সকল প্রকার ফি ছাড়াই জবিতে পড়াশোনা করার সুযোগ পাচ্ছেন স্বর্নজয়ী মারজানা বেনাপোলে ১কেজি গাঁজাসহ দুই নারী মাদক বহনকারী আটক গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন স্থগিত যশোরের ১১টি মামলার এজাহার ভুক্ত আসামী ও মাদকের ডিলার ইব্রাহিম হোসেন আটক

© All rights reserved © 2017 onnodristy.com

Theme Download From ThemesBazar.Com