ব্রেকিং নিউজ
সংবাদকর্মী আবশ্যক। আগ্রহীগণ সিভি, ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিসহ আবেদন করুন - onnodristynews@gmail.com/ news@onnodristy.com. মুঠোফোন : ০১৯১১২২০৪৪০/ ০১৭১০২২০৪৪০।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কর্ম ও জীবন ( ১০ ম ও বিশেষ পর্ব) 

প্রদীপ কুমার দেবনাথ।।

(১৯৭২ – ১৯৭৫ পর্যন্ত জাতির জনকের বাংলাদেশকে জনগণের বাসযোগ্য করতে যা করেছেন তার সংক্ষিপ্ত বিবরণ) 

১৯৭২ সালের  ৩ জানুয়ারীতে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট  জুলফিকার আলী ভূট্টো করাচীতে ঘোষণা করেন ‘শেখ মুজিবকে বিনা শর্তে মুক্তি দেয়া হবে’। ৮ জানুয়ারীতে বঙ্গবন্ধু কারাগার থেকে মুক্তি পান এবং তাকে  পিআইয়ের একটি বিশেষ বিমানে লন্ডনে পাঠানো হয়। ৮ জানুয়ারী ভোরে বঙ্গবন্ধু লন্ডনে পৌছেন। তার হোটেলের সামনে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে তিনি ঘোষণা করেন ‘আমি আমার জনগনের কাছে ফিরে যেতে চাই’।

তারপর ১০ জানুয়ারী সকালে তৎকালীন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী এডওয়ার্ডহীথের সৌজন্যে  ব্রিটেনের রাজকীয় বিমান বাহিনীর এক বিশেষ বিমানে বঙ্গবন্ধু নয়া দিল্লী পৌছালে রাষ্ট্রপতি ভি.ভি গিরি এবং প্রধানমন্ত্রী শ্রীমতি ইন্দিরাগান্ধী বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতিকে স্বাগত জানান এবং বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রের প্রথম রাষ্ট্রপতিকে বিরাট মর্যাদায় ভূষিত করেন। বিমান বন্দরে বঙ্গবন্ধু বলেন ‘অশুভের বিরুদ্ধে শুভের বিজয় হয়েছে’। ঐ দিন বিকেলে ভারতীয় বিমান বাহিনীর একটি বিশেষ বিমানে বঙ্গবন্ধু ঢাকা বিমান বন্দরে অবতরণ করেন। বাঙ্গালির হৃদয়ের স্পন্দন, প্রাণপ্রিয় নেতাকে স্বাগত জানাতে লাখো মানুষের জনস্রোত হয়। জাতির পিতা বিমান থেকে পা মাটিতে রাখতেই  বাঁধভাঙ্গা আবেগে অশ্রসিক্ত হয়ে পড়েন এবং সেখানে বঙ্গবন্ধু বলেন ‘আজ আমার জীবনের স্বাদপূর্ণ হয়েছে, তোমাদের ত্যাগ,তোমাদের ভালবাসা আজ স্বার্থক হয়েছে’।

ঐ দিন জনসমুদ্রে বঙ্গবন্ধু হৃদয়কাড়া এক ভাষণ দেন। ঐ রাতেই তিনি রাষ্ট্রপ্রধানের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ১৯৭২ সালের ১২ জানুয়ারী বঙ্গবন্ধু  রাষ্ট্রপতি শাসনের পরিবর্তে সংসদীয় শাসন কাঠামো প্রবর্তন করে নতুন মন্ত্রী পরিষদ গঠন করে এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন। ১২ মার্চে স্বাধীনতার মাত্র ৫০ দিনের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর অনুরোধে ভারতীয় সৈন্য প্রত্যাহার শুরু হয়। ২৬ মার্চে প্রথম স্বাধীনতা দিবসে বঙ্গবন্ধু কর্তৃক ক্ষুধা,  দারিদ্রমুক্ত ও শোষনহীন সমাজ গঠনের অঙ্গীকারের মধ্যে দিয়ে প্রথম স্বাধীনতা দিবস উদযাপিত হয়। এই বছরের ২০ এপ্রিল শুরু হয় গণপরিষদের অধিবেশন শুরু হয় এবং  বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা ঘোষনা সম্পর্কিত প্রস্তাব উত্থাপন করলে তা সর্বসম্মতিক্রমে পাশ হয়।  ৪ নভেম্বর, গণপরিষদে বাংলাদেশের খসড়া শাসনতন্ত্র অনুমোদিত হয়। এ উপলক্ষে প্রদত্ত ভাষনে বঙ্গবন্ধু বলেন ‘বিজয়ের ৯ মাসের মধ্যে শাসনতন্ত্র দেয়া, মানুষের মৌলিক অধিকার দেয়ার অর্থ হলো আমরা জনগনের উপর বিশ্বাস করি।

১৬ ডিসেম্বরে নতুন সংবিধান কার্যকর করা হয়। বাতিল করা হয় গণপরিষদ। ১৯৭৩ সালের ৭ মার্চে নতুন সংবিধান অনুযায়ী  বাংলাদেশে প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ৩০০টির মধ্যে ২৯২টি আসনে বিজয়ী হয়। একই বছরের  ৩ সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, সিপিবি ও ন্যাপের সমন্বয়ে ত্রিদলীয় ঐক্যজোট গঠিত হয়। তারপর  ১৯৭৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রথম বাঙালী নেতা হিসেবে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে বাংলা ভাষায় বক্তৃতা দিয়ে বাংলা ভাষাকে বিশ্বের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভাষা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন । ১৯৭৫ সালের ২৫ জানুয়ারী দেশে বিরাজমান পরিস্থিতি এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু জাতীয় সংসদে চতুর্থ সংশোধনী বিল পাশ করেন। এই বিলের মাধ্যমে জাতীয় ঐক্যমতের ভিত্তিতে সমাজতান্ত্রিক বাংলাদেশের যাত্রা শুরু হয়।

বঙ্গবন্ধু ছিলেন এক অনন্য প্রতিভার মহাসমুদ্র,  বাংলাদেশ নামক এই মানচিত্রের স্বপ্নদ্রষ্টা, স্বপ্নের রূপকার। এমনিতেই তিনি আমাদের জাতির জনক নন। মহান এই নেতার সাফল্যের কথা এই ক্ষুদ্র পরিসরে লিখে শেষ করা যাবেনা। এই রাষ্ট্র বিনির্মানে  ধাপে ধাপে রয়েছে তার বিচক্ষনতা, প্রজ্ঞা ও মেধা। বঙ্গবন্ধুর সাফল্য গাঁথা লিখে শেষ করবার মতো নয়। তারপরও তার উল্লেখযোগ্য কিছু সাফল্যের শিরোনাম এখানে উল্লেখ করা হলো-

১। অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির পুরোধা ব্যক্তিত্ব ছিলেন বঙ্গবন্ধু। ১৯৫৫ সালের ২১ অক্টোবর আওয়ামী মুসলীম লীগ থেকে তিনি মুসলিম শব্দ বাদ দিয়ে অসাম্প্রদায়িক ‘আওয়ামী লীগ’ নামকরণ করেন।

২।  বাঙালির মুক্তির সনদ ৬ দফার প্রণেতা এবং বাঙালি জাতীয়তাবাদের প্রবক্তা ছিলেন আমাদের বঙ্গবন্ধু।

৩। মুক্তিযুদ্ধের সফল রূপকার। তাঁর ৭ই মার্চের ভাষনই ছিলো গেরিলা যুদ্ধের কৌশল।

৪। পৃথিবীতে বঙ্গবন্ধুই একমাত্র নেতা যার কারণে একটি দেশ স্বাধীন হবার মাত্র ৫০ দিনের মাথায় সে দেশ থেকে বিদেশী সৈন্য প্রত্যাহার করা হয়েছিল এবং যা ছিলো একটি বিস্ময়কর ঘটনা। বঙ্গবন্ধুর প্রজ্ঞায় এবং দৃঢ় নেতৃত্বের কারণেই ১৯৭২ এর ১২ মার্চ ভারতীয় সৈন্য প্রত্যাহার শুরু হয়।

৫। বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার মাত্র এক বছরের মধ্যে জাতিকে একটি আধুনিক, গণতান্ত্রিক সংবিধান উপহার দেন। ১৯৭২ এর ১৬ ডিসেম্বর সংবিধান কার্যকর হয়।

৬।  ক্ষমতায় আসার মাত্র এক বছরের মধ্যে বঙ্গবন্ধু প্রথম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা প্রণয়ন করেন।

৭। বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশে একটি গণমুখী শিক্ষানীতি প্রণয়নের উদ্যেগ নেন। এলক্ষ্যে ১৯৭২ সালের ২৬ জুলাই ড: মুহাম্মদ কুদরত-এ-খুদাকে সভাপতি করে একটি শিক্ষা কমিশন গঠন করেন। কমিশন ১৯৭৪ সালের মে মাসে পূর্ণাঙ্গ রির্পোট পেশ করে।

৮। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে যুদ্ধোত্তর বাংলাদেশে কৃষি ক্ষেত্রে নেয়া হয়েছিল ব্যাপক কর্মসূচী। এর মধ্যে ছিলো ৪০ হাজার শক্তি চালিত লো লিফট পাম্প ২৯০০টি গভীর নলকূপ ও ৩০০০ অগভীর নলকূপ। ১৯৭২ সালের মধ্যেই জরুরী ভিত্তিতে বিনামূল্যে ১৬,১২৫ টন ধান বীজ, ৪৫৪ টন পাট বীজ এবং ১০৩৭ টন গম বীজ সরবরাহ করা হয়। ২৫ বিঘা পর্যন্ত জমির খাজনা চিরতরে রহিত করা হয়।

৯। যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশে শিল্প কারখানা রক্ষায় বঙ্গবন্ধু ১৯৭২ সালের ২৬শে মার্চ জাতীয়করণ কর্মসূচী ঘোষণা করেন। এর ফলে যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেমে শিল্প-কলকারখানা আবার চালু হয়। ব্যাংক, বীমা জাতীয়করনের ফলে গতি সঞ্চারিত হয়।

১০। জাতির জন্য দেওয়া  প্রথম বাজেটে জনগনের উপর কোন কর আরোপ করা হয়নি।

১১। বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীকে পূনর্গঠন করেন। সেনাবাহিনীর প্রশিক্ষনের জন্য বাংলাদেশ মিলিটারী একাডেমী প্রতিষ্ঠা করেন।

১২। বঙ্গবন্ধু সিভিল প্রশাসন পূণর্গঠন করেন।

১৩।  বঙ্গবন্ধুর শাসনামলে প্রথম এক বছরেই যুদ্ধ বিধ্বস্ত ২৮৭টি সেতুর মধ্যে ২৬২টি ২৭৪টি সড়ক সেতুর মধ্যে ১৭০টির মেরামত শেষ হয়। দশ কোটি টাকা ব্যয়ে যুদ্ধবিধ্বস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পূণ: নির্মাণ করা হয়।

১৪।  বঙ্গবন্ধুর উদ্যোগে বাংলাদেশ স্বাধীনতার পর ১৪২টি দেশের স্বীকৃতি আদায় করেন। জোট নিরপেক্ষ আন্দোলন, জাতিসংঘ, কমনওয়েলথ এবং ওআইসির সদস্য লাভ করে বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু প্রথম বাঙালি যিনি একটি দেশের সরকার প্রধান হিসেবে জাতিসংঘে বাংলা ভাষায় ভাষণ দেন।

“বাংলাদেশ” নামক সন্তানটির পরম সৌভাগ্য যে, বঙ্গবন্ধুর মতো আদর্শ, যোগ্য, কর্মঠ, ত্যাগী, বিচক্ষণ, দূরদর্শী, মানবতাবাদী, অসাম্প্রদায়িক ও অসাধারণ নেতৃত্বের অধিকারী ব্যক্তিকে পিতা হিসেবে পেয়েছিল। মাত্র সাড়ে তিন বছরে তিনি বাঙ্গালী জাতিকে ও বাংলাদেশকে অনেক উপরে উঠিয়ে নিয়েছিলেন। মহাপরিকল্পনা ছিল এই প্রিয় সন্তানকে পিতা হিসেবে আদর্শ সন্তান হবে। আর সেই আদর্শ সন্তানকে আমরা, ” সোনার বাংলা ” হিসেবে পাবো।

 

লেখক

শিক্ষক ও সাংবাদিক।

Facebook Comments


Leave a Reply

শিরোনাম
মনিরামপুরে হরিহর নদীর পাড় তৈরির মাটি বিক্রির অভিযোগ ঝিকরগাছায় ডিজিটাল পোস্ট ই-সেন্টারের উদ্যোক্তাদের সাথে ডিপিএমজির সভা অনুষ্ঠিত প্রিয়াঙ্কা-ফারহানের অন্তরঙ্গ শ্যুটিং মুহূর্ত ভাইরাল দৃশ্যমান হল ২৭০০ মিটার পদ্মা সেতু কুষ্ঠরোগীদের দেখে দূর-দূর করবেন না: প্রধানমন্ত্রী বেনাপোল সাংবাদিক আটকের পর নিজেকে বাঁচাতে এবার কামালের থানায় জিডি ঝিনাইদহ জেলার শ্রেষ্ঠ সহকারি শিক্ষক টুটুল আগামীকাল বরগুনায় ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জোছনা উৎসব! খুলনা মহানগর আ’লীগের সভাপতি কে অভিনন্দন যানিয়েছেন মোংলা উপজেলা ও পৌর নেতাকর্মীরা জ্যঁ কুয়ে একজন বিমান হাইজ্যাকার! সকল প্রকার ফি ছাড়াই জবিতে পড়াশোনা করার সুযোগ পাচ্ছেন স্বর্নজয়ী মারজানা বেনাপোলে ১কেজি গাঁজাসহ দুই নারী মাদক বহনকারী আটক গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন স্থগিত যশোরের ১১টি মামলার এজাহার ভুক্ত আসামী ও মাদকের ডিলার ইব্রাহিম হোসেন আটক ঝিকরগাছার বাঁকড়া বাজারে লাগামহীন ভাবে বাড়ছে জিনিস পত্রের দাম  রুপদিয়ায় ছাত্রলীগের দুই নেতার মাটি কেনাবেচার কোন্দলে যুবক খুন মহেশপুর উপজেলা আজমপুর ইউনিয়নের আইনশৃঙ্খলা বিষয়ে সচেতনতামূলক সভা গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাতা সফল জননী নারী হিসাবে ভূষিত ‘এবার পুরনো রুহি হয়ে ফিরে আসব’ ৫০ টাকার নতুন নোট আসছে পাটজাত পণ্যের প্রসারে তুরস্ককে বিনিয়োগের আহ্বান স্পিকারের রাঙ্গুনিয়ায় বন্য হাতির আক্রমণে একজন বৃদ্ধের মৃত্যু মহেশপুরে বিজয় দিবস উৎযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত  ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্তির দাবিতে ইবির প্রধান ফটকে তালা ইবি থিয়েটারের নতুন সভাপতি অনি- সম্পাদক এনামুল

© All rights reserved © 2017 onnodristy.com

Theme Download From ThemesBazar.Com