ব্রেকিং নিউজ
সংবাদকর্মী আবশ্যক। আগ্রহীগণ সিভি, ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিসহ আবেদন করুন - onnodristynews@gmail.com/ news@onnodristy.com. মুঠোফোন : ০১৯১১২২০৪৪০/ ০১৭১০২২০৪৪০।

অনুপাত প্রথা বাতিল না করে সহযোগী অধ্যাপক মানে তেলা মাথায় তেল

জহিরুল ইসলাম।। 

বেসরকারি কলেজ শিক্ষকদের সর্বোচ্চ পদবী সহযোগী অধ্যাপকে উন্নীতকরণের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানাই। এর জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অগ্রিম অভিনন্দন। তবে, অনুপাত প্রথার কারনে একই যোগ্যতা সম্পন্ন দুজনের মধ্যে একজন সহকারী ও সহযোগী অধ্যাপকের মর্যাদা অর্জন করবেন আর অপরজন আজীবন প্রভাষক পদেই বহাল থাকবেন এটি কেমন কথা!

একজন শিক্ষকের পাঠদানসহ বিভিন্ন গুণাবলী ও কাজের মূল্যায়ন স্বরূপ তার পদায়ন দ্রুত কিংবা বিলম্বিত হওয়ায়টা স্বাভাবিক কিন্তু অনুপাত প্রথার কারণে আজীবনের জন্য একই পদবীতে আটকে যাওয়াটা অস্বাভাবিক। তা মোটেও কাম্য নয়।

২০১৮ সালের এমপিও নীতিমালা এ বিষয়টিকে আরও গুরুতর পর্যায়ে নিয়ে যায়। যেখানে একজন প্রভাষক আট  বছর পূর্তিতে ৯ম গ্রেড হতে ৭ম গ্রেডে উন্নীত হতে পারতেন (২২০০০ টাকা থেকে ২৯০০০ টাকা) এখন সেখানে ষোল বছর পর ৭ম গ্রেডে উন্নীত হবেন।

বাংলাদেশে পেশাজীবিদের বেতন বৃদ্ধির পাশাপাশি অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা যেখানে বৃদ্ধি পাচ্ছে সেখানে শুধুমাত্র প্রভাষকদের সুযোগ-সুবিধা কমে যাচ্ছে। এমন বেতন বৈষম্য আর কোন পেশায় আছে বলে আমার জানা নেই।

বর্তমানে সহকারী অধ্যাপক থেকে অনুপাত প্রথার মাধ্যমে সহযোগী অধ্যাপক  পদে উন্নীত করার যে সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে তা নতুন করে এ বৈষম্যকে আরও বড় বৈষম্যের দিকে ঠেলে দিবে যদিনা অনুপাত প্রথা বাতিল করা হয়। বর্তমান পদ্ধতিতে যিনি সহকারী অধ্যাপক পদে পদায়ন হচ্ছেন উনার সহকর্মীকে বঞ্চিত রেখে,তিনিই যখন আবার একই পদ্ধতিতে সহযোগী অধ্যাপকের পদমর্যাদা পাবেন, আর্থিক সুযোগ-সুবিধা ভোগ করবেন যাকে বলা যায় তেলা মাথায় তেল। অপরজন শুধু বঞ্চনার স্বীকারই হতে থাকবেন। আকাশ-পাতাল ব্যবধানের এই বৈষম্য নি:সন্দেহে পাঠদানে বিরূপ প্রভাব ফেলবে। যার প্রভাব পড়বে শিক্ষার্থীদের উপর। শিক্ষাব্যবস্থায় এমন পরিস্থিতি আমরা কখনও কামনা করিনা।

আমরা চাই অনুপাত প্রথা বাতিল করে প্রভাষকদের সুষম সুযোগ-সুবিধা সৃষ্টি হোক। মেধাবীরা শিক্ষকতার মতো মহান পেশায় নিজেদের নিয়োজিত করতে প্রতিযোগিতায় লিপ্ত হোক। মেধাবীরা শিক্ষকতায় না আসলে শিক্ষার গুণগত মান প্রশ্নবিদ্ধ থেকে যাবে। যতই মান উন্নয়নের পরিকল্পনা করা হোক না কেন তা কোনদিন বাস্তব রূপ লাভ করবেনা।

কোন দেশের শিক্ষাব্যবস্থার উন্নয়ন না ঘটলে সে দেশের মানুষের জীবন মানের উন্নয়ন ঘটানো সম্ভবপর নয়।

আমরা চাই শিক্ষকের মর্যাদা অক্ষুণ্ন থাকুক, শিক্ষাব্যবস্থা উন্নত হোক।

লেখক
প্রভাষক (অর্থনীতি)
শাহজালাল কলেজ
জগন্নাথপুর, সুনামগঞ্জ।

Facebook Comments


শিরোনাম
নওগাঁয় বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনায় বর্ষ বরণ ১৪২৬ মানবদেহের অজানা ১০টি তথ্য কুষ্টিয়া পাটিকাবাড়ী ইউনিয়নে কৃষকদের বাংলা বর্ষবরণ উদযাপন বর্ণাঢ্য আয়োজনে ঝিনাইদহে বৈশাখ বরণ বাংলা নববর্ষ বাঙ্গালী বাবু যে কারণে বৈশাখী ভাতার টাকা তুলতে পারেননি শিক্ষক-কর্মচারী নেপালে ফের বিমান বিধ্বস্ত, নিহত-৩, আহত-৫ মাধ্যমিক স্তরে চালু হচ্ছে ‘ট্রেড কোর্স’ নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশে পাঠানো উচিত: বদরুদ্দিন আজমল স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কারণেই আজ আমি ভুটানের প্রধানমন্ত্রী: লোটে শেরিং চট্টগ্রামে রাঙ্গুনিয়ায় বাংলা নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা ও বৈশাখ বর্ষবরণ নওগাঁয় ইয়াবা ট্যাবলেট সহ একজনকে হাতেনাতে আটক করেছে র‌্যাব-৫ রাঙ্গামাটির বর্ষবরণ উৎসবে লংগদুতে মঙ্গল শোভাযাত্রা গন্তব্যহীন পথে শিক্ষাব্যবস্থা শিক্ষক ফোরামের দৃষ্টি আকর্ষণ বার্তা একদিনের বাঙাল বর্ষবরণ উৎসবে লক্ষ্মীপুরে মঙ্গল শোভাযাত্রা বেদে নারীকে বাবা বিয়ে করায় লক্ষ্মীপুরে মেয়ের আত্মহত্যা মাদরাসাছাত্রী নুসরাত হত্যার নেপথ্যে দুই কারণ বিশ্বকাঁপানো সেই বিজ্ঞানীও চবির শিক্ষক নিয়োগে যোগ্য নয়! আরজিনা লাকী’র কবিতা বর্ণাঢ্য আয়োজনে ঝিনাইদহে একুশে টেলিভিশনের জন্মবার্ষিকী পালিত এসো হে বৈশাখ, এসো এসো কাল বৈশাখীর ঝড়ে ভেঙ্গে গেল বিধবা রেশমার ঘর
© All rights reserved © 2017 Onnodristy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com