১৮ অগাস্ট ২০১৮ || শনিবার || ০৪:১০ অপরাহ্ন

হরিণাকুন্ডুতে জ্বীন সাপ আতঙ্ক : ৩ দিনে ৭০ জনের দংশন

নাজমুল হুদা রিপন, হরিণাকুন্ডু, ঝিনাইদহ।।

ঝিনাইদহের হরিণাকু-ুর চটকাবাড়িয়া গ্রামে জ্বীন সাপের কামড়ে চরম আতংক সৃষ্টি হয়েছে। গত ৩ দিনে প্রায় ৭০ জনকে জ্বীন সাপে কামড়িয়েছে বলে গ্রামবাসী জানিয়েছে। গ্রামবাসি জ্বীন সাপের কামড় থেকে রক্ষা পেতে কবিরাজের পরামর্শে ছাগল জবাই করে মিসকিনদের মাঝে বিলিয়ে দিচ্ছে। হরিণাকু-ু পৌরসভার মেয়র ও চটকাবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা শাহিনূর রহমান রিন্টু জানান গত ৩ দিনে গ্রামের প্রায় ৭০ জন নারী ও পুরুষকে জ্বীন সাপে কামড়িয়েছে বলে তিনি শুনেছেন। সাপের কামড়ে অসুস্থ ঐ গ্রামের গ্রাম পুলিশ সদস্য আত্তাব হোসেনের ছেলে লিটন জানান, গত ১১ জুলাই সন্ধায় হঠাৎ তার হাতে কামড়ের দাগ দেখা যায়। এ সময় ক্ষত স্থানে প্রচন্ড জ্বালা যন্ত্রনা ও মাথা ঘোরা শুরু হয়। কবিরাজের কাছে গেলে কবিরাজ ঝাড় ফুক করে জ্বীন সাপে কামড়েছে বলে জানায়। জ্বীন সাপের কামড়ের শিকার ঐ গ্রামের স্বপন, লিয়ন, রান্নু, টনি, মিরাজ, মোমিন, উকিল, ইউসুফ, উসমান, স্বপ্না খাতুন, জুলেখা খাতুন সহ সবারই একই বক্তব্য।

জ্বীন সাপে কামড়ে রোগীদের চিকিৎসাকারী পার্শ্ববর্তী বিরামপুর গ্রামের কবিরাজ মহত আলী জানান, ঐ গ্রামে একটি পুরানো নিমগাছ ছিল। যেটির পরিচর্যা করতেন ঐ গ্রামের শতবর্ষী বয়সী বৃদ্ধ হাতেম আলী। ঈদের পর এক ব্যক্তি একটি মহিষ জবাই করায় ক্ষিপ্ত হয়ে জ্বীন সাপ রুপে গ্রামবাসীর উপর প্রতিশোধ নিচ্ছে। কবিরাজ মহত আলী জানান, ছাগল জবাই করে মিসকিনদের মাঝে বিলিয়ে দিয়ে হাড় ও রক্ত গ্রামের মাঝখানে পুতে দেওয়ার কারণে জ্বীন সাপের অত্যাচার কমে গেছে। গ্রামের মুরব্বী খলিলুর রহমান জানান, কবিরাজের পরামর্শে শনিবার ছাগল জবাই করে মিসকিনদের মাঝে বিতরণ করার পর থেকেই বন্ধ হয়েছে জ্বীন সাপের উৎপাত। বিষয়টি নিয়ে হরিণাকুন্ডু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আর.এম.ও ডাক্তার আশরাফুল ইসলাম বলেন, হাসপাতালে একটি শিশু ভর্তি হয়েছিল তার কোথাও কোন কামড়ানোর চিহ্ন পাওয়া যায় নাই। এটিকে মাস সাইকোজেনিক ইলনেস বা গণমণস্তাত্তিক রোগ বলা হয় বলে তিনি জানান। আসলে জ্বীন সাপ বলে কিছ্ ুনেই। মানুষের মধ্যে আতঙ্ক জনিত কারণে এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে বলে তিনি জানান।

Facebook Comments


© All rights reserved © 2017 Onnodristy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com