২৩ জুলাই ২০১৮ || সোমবার || ০২:০৭ অপরাহ্ন

অনশনরত শিক্ষকদের বাড়ী ফিরে যাওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিবের

ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার।।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া আশ্বাসের ওপর বিশ্বাস রেখে অনশনরত শিক্ষকদের বাড়ী ফিরে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর একজন একান্ত সচিব। ৭ জুলাই অনশনরত শিক্ষকদের সভাপতি গোলাম মাহামুদুন্নবী ডলারকে এমন পরামর্শ  দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব-২। সভাপতি সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। গত ৫ জানুয়ারি অনশনরত শিক্ষকদের আশ্বাস দেয়া হয়। ওই আশ্বাস পেয়ে অনশন স্থগিত করে শ্রেণিকক্ষে ফিরে গিয়েছিলেন শিক্ষকরা। কিন্তু নজুন বাজেটে কোনও অর্থ বরাদ্দ না রাখা এবং নতুন এমপিও নীতিমালা চাপিয়ে দেয়ার প্রতিবাদে ফের অনশন শুরু করেছেন শিক্ষকরা।

এদিকে এমপিওভুক্তির দাবিতে আমরণ অনশন অব্যহত রয়েছে। রোববার ৮ জুলাই কর্মসূচির ১৪তম দিনে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে উত্তর পাশের সড়কে এমপিওভুক্তির দাবিতে অনশনরত আছেন ননএমপিও শিক্ষকরা। ২৮ দিনের অবস্থান কর্মসূচি ও ১৪ দিন ধরে রাজপথে অনশন করলেও দাবি আদায়ে সরকার থেকে এখন পর্যন্ত কোনো সাড়া পাননি তারা। অনশনে  ইতোমধ্যে প্রায় ২ শতাধিক শিক্ষক-কর্মচারী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ২৩ জন এবং অন্যান্য হাসপাতালে ৫০ জন শিক্ষক-কর্মচারী চিকিৎসা নিয়েছেন।

 

সংগঠনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ড. বিনয় ভুষণ রায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ফিরে আবার অনশনে যোগ দিয়েছেন। তারা সংকল্প ব্যক্ত করেছেন, মরতে হয় মরব তবুও আর হাসপাতালে যাবো না, স্যালাইনও নেব না।

সংগঠনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার বলেন, আমরা ১ জুলাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাত চেয়ে এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য দুটি পত্র দিয়েছি। আমাদের অবস্থান হল বরাদ্দকৃত অর্থ অপর্যাপ্ত হলে সকল ননএমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওর আওতায় এনে আংশিক বেতন চালু ও পরবর্তী অর্থবছরে বেতনের সমন্বয়সাধন করা এবং দীর্ঘ ১৫-২০ বছর এমপিওভুক্ত না হওয়া দুর্বল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে সক্ষমতা যাচাই করার উদ্দেশ্যে এমপিওভুক্তির পর ৩ বছর সময় প্রদান ও এসময়কালে সক্ষমতা অর্জনে ব্যর্থ হলে বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ। আমরা আশা করি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দ্রুত আমাদের সাক্ষাত দেবেন এবং সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির নির্দেশ দিবেন।

সভাপতি আরও বলেন, স্বীকৃতিপ্রাপ্ত নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য একমাত্র নীতি হবে প্রতিষ্ঠানের একাডেমিক স্বীকৃতি। যার মাধ্যমে অতীতে সারাদেশের ২৮ হাজার বেসরকারী শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। আমাদের স্পষ্ট বক্তব্য বর্তমানে ৫ হাজার ২৪২টি স্বীকৃতিপ্রাপ্ত শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ও পূর্বের এমপিওভুক্তি নীতিতে এমপিওভুক্ত হবে। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তাঁর একান্ত সচিব জনাব সাজ্জাদুল হাসানকে পাঠিয়ে তাঁর মাধ্যমে ৫ জানুয়ারি মেনে নিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী স্বীকৃতিপ্রাপ্ত নন-এমপিও সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান একযোগে এমপিওভুক্তকরণের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তা বাস্তবায়নের উপযোগী একটি নীতিমালা প্রত্যাশা করছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আমরণ অনশন চলবে।

Facebook Comments


© All rights reserved © 2017 Onnodristy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com