ব্রেকিং নিউজ
সংবাদকর্মী আবশ্যক। আগ্রহীগণ সিভি, ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিসহ আবেদন করুন - onnodristynews@gmail.com/ news@onnodristy.com. মুঠোফোন : ০১৯১১২২০৪৪০/ ০১৭১০২২০৪৪০।

নেতা নির্বাচনে সাপ-লুড্ডু খেলার রাজনীতি

এড. মিজানুর রহমান।।

শৈশবে সাপ লুড্ডুর ছক্কা খেলা ছিলো আমাদের নিত্যদিনের। ছক্কার গুটি যখন সাফের মুখে পড়তো তখন সোজা নিছের দিকে লেজে এসে শেষ হতো। গুটি যখন মই’র নিছে পড়তো  তখন সোজা উপরে উঠে জয়ের পথে সকল বাধা অতিক্রম করে খেলাকে বিজয়ের আনন্দে ভরিয়ে দিতো। সকল খেলাতে জয় পরাজয় থাকে, আনন্দ বেদনায় মুখরিত থাকে সকল খেলার পটভূমি। দক্ষ খেলোয়াড়ও অনেক সময় কঠিন সময়ের কাছে অসহায় হয়ে পড়ে। ভালো খেলেও ভালো প্লেয়ার জয়ের মুকুট লাভ করতে পারে না। অদক্ষ খেলোয়ারও অনেক সময় জয় লাভ করে থাকে। নিশ্চিত জয়পরাজয়ের মানদন্ড কখোনো নিশ্চিত নির্ধারিত থাকে না। জয়পরাজয় হলো একটি খেলার শেষাংশের হিসাব-নিকাশ। খেলার শুরু আর আয়োজনের মাঝেই সকল বিনিয়োগ প্রয়োগ হয়ে থাকে। খেলা শেষে দর্শক, খেলোয়ার ও আয়োজক সকলে দুঃখ কষ্টের মানদন্ডে দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে। এক ভাগ আনন্দে আত্মহারা থাকে অন্যভাগ ভারাক্রান্ত হৃদয়ে পরাজয় মেনে নেয়।

বাংলাদেশের সমকালিন রাজনীতি অনেকটা সাপ লুড্ডু খেলার মত। ভাগ্য দ্বারা নিয়ন্ত্রীত।সাপের মুখে পড়লেই শেষ।মইয়ের মুখে পড়লে একেবারে উপরে। রাজনীতিতে পর্যায়ক্রমিক ভাবে বড় নেতার অনুকম্পা নিয়েই নেতৃত্ব লাভ করতে হয়। বড় নেতার বদান্যতা ব্যাতিত নেতা নির্বাচিত হওয়ার কোন সুযোগ নেই। বড় নেতাকে কদমবুচি করে এক প্রকার অজ্ঞ আনুগত্যতা স্বীকার করে নেতৃত্ব গ্রহন করতে হয়। করুণায় বদৌলতে পাওয়া অর্জিত নেতৃত্বের মেরুদন্ড সোজা করে চলতে পারে না। নির্ভরশীল নেতৃত্ব সরীসৃপ জাতীয় প্রানীর মত গড়িয়ে গড়িয়ে চলতে থাকে।একটি অধঃপতিত রাজনৈতিক অবয়ব থেকেই বিরজনীতিকরন প্রক্রিয়া শুরু হয়। মাল্টিক্লাশ দলগুলোর  ভিতরে আভ্যন্তরীন গনতান্ত্রীক কেন্দ্রীকতা চর্চা না থাকায় দলে যোগ্য নেতা তৈরীর হওয়ার কোন সুযোগ থাকে না।

বাংলাদেশের সংবিধান সংশোধনের প্রয়োজনীয়তার চাইতে রাজনীতির নেতা  সৃষ্টির সিস্টেম পরিবর্তন করা বেশী জরুরী। রাজনৈতিক ভাবে রুগ্ন একটি সমাজ অর্থনৈতিক ভাবে উন্নতি লাভ করলেও সকল অর্জন তাসের ঘরের মত ধূলিসাৎ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। দলে নেতা হওয়ার সিস্টেম পরিবর্তন করা জরুরী। যোগ্য ব্যাক্তিকে তার যোগ্যতা অনুযায়ী যথাযথ জায়গায় প্রতিস্থাপন করাই সঠিক রাজনীতি। একটি দলের আদর্শ যেমন গুরুত্বপূর্ন তেমনি আদর্শিক  নেতা কর্নীদের শৃঙ্খলা, জবাবদিহিতা ও নেতা তৈরীর সিস্টেম আরো বেশী গুরুত্বপূর্ণ। রাষ্ট্র পরিচালনার জন্য সাংবিধানিক সকল প্রতিষ্ঠানে মেধা নির্ভর যোগ্য ব্যাক্তিকে পরীক্ষা নিরীক্ষার মাধ্যমে নিয়োগ দেওয়া হয়। বি সি এস ক্যাডার,ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার,সরকারী চাকুরীজীবি, সকলেই প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি যোগ্যতার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হয়। কিন্তুু রাষ্ট্রকে যেই রাজনৈতিক দল নেতৃত্ব দিবেন তাদের যোগ্যতার কোন পরীক্ষা না হলে অনায়াসে অযোগ্য লোক রাজনীতির সুড়ঙ্গ পথে প্রবেশ করে রাজনীতির স্বকীয়তা বিনষ্ট করবে।

জননেতা হওয়ার মানদন্ড জনগনের হাতে থাকাই সাংবিধানিক দায়ীত্ব। দল পরিচালনার জন্য যোগ্যতা বাচাইয়ের জন্য প্রয়োজন দলের ভীতরের পূর্ণাঙ্গ গনতান্ত্রিক চর্চা। জননেতা আর দলনেতা এক নয়। রাজনীতির অপরিপক্কতার কারনে অনেক সময় জননেতার সাথে দলনেতার পার্থক্য নির্ধারন করতে ভুল হয়। দল যখন জনগনের প্রতিপক্ষ হয়ে যায় তখন দলনেতার জনপ্রিয়তার হ্রাস পেতে থাকে। কোন দলনেতা যখন তার দলকে নিজের ব্যাক্তিগত গুনাবলীর মাধ্যমে জনমনে ইতিবাচক মনোভাব সৃষ্টি করতে পারে তখন সেই নেতা জনগনের মাঝে নিজের স্থান করে নিতে পারেন। নেতার ব্যাক্তিগত সমাজবিরোধী এবং বেআইনী অশালীন আচরনে দলের জনপ্রিয়তা শুন্যের কোঠায় নেমে আসে। দল আপরাধীর কাঠগোড়ায় দাঁড়িয়ে অভিযোগে অভিযুক্ত হয়ে পড়ে। তখনই মানুষ সেই রাজনৈতিক দলকে প্রত্যাখ্যান করে।

রাজনৈতিক দলের নেতা বা এম পি নির্বাচনের মনোনয়ন প্রক্রিয়া একটি সাফলুড্ডু খেলার মত  দুর্বল প্রক্রিয়ার সম্পুর্ন হতে পারো না। রাজনৈতিক দলের জন্য সুনিদৃষ্ট একটি স্থায়ী পদ্ধতি তৈরী করা জরুরী। ভাগ্য নির্ভর,  আত্মিয় নির্ভর,অর্থ নির্ভর, সন্ত্রাস নির্ভর কিংবা নীতিগর্হিত কোন পদ্ধতিতে নেতা মনোনিত হতে পারে না। রাজনীতিকে আদর্শিক ভাবে বিকশিত করার স্থায়ী পদ্ধতি প্রতিটি দলের গঠনতন্ত্রে সন্নিবেশিত হওয়া আবশ্যক। যোগ্য ব্যাক্তিকে যোগ্য জায়গায় প্রতিস্থাপন করাই আধুনিক কল্যান রাষ্ট্রের রাজনীতির বৈশিষ্ট। অযোগ্য ব্যাক্তিকে গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় বসানো হলে সমগ্র প্রতিষ্ঠান ধংশ হয়ে যায়। রাষ্ট্রের অন্যান্য প্রতিষ্ঠান যেমন গুরুত্বপূর্ন রাজনৈতিক দলও তেমনি গুরুত্বপুর্ন। রাজনৈতিক দল ও নেতাই সর্বশেষ রাষ্ট্রকে পরিচালনা করে থাকেন। অথচ রাষ্ট্রীয় ভাবে রাজনীতিকে পরিচর্যার কোন ব্যাবস্থা গড়ে উঠে নাই।

এম পি নির্বাচনে ক্ষমতাশীন রাজনৈতিক দলে গোপন তদন্তের কথা সকলে মুখে আলোচনায় মুখরিত থাকে। নেতা কর্মীগনের  নিকট প্রচার করা হয় সরকার গোপন তদন্ত, গোয়েন্দা সংস্থা, সরকারী অন্যান্য সংস্থা কতৃক রিপোর্ট সংগ্রহ করার ব্যাবস্থা করেন বলে আলোচনায় থাকে। বাস্তবতায় এই ঘটনার সত্যতার যুক্তি ও বাস্তব প্রমান পাওয়া যায় নাই। বিরোধী দলের মাঝেও নেতাদের জনপ্রিয়তা মাপার জন্য এন জি ও কিংবা দলের গোপন তদন্ত টিমের নাম বহুল প্রচলিত থাকে। অনেক সময় সংসদ কিংবা স্থানীয় সরকার নির্বাচনে  গনদুশমনকেও মনোনয়ন প্রদান করা হয়। মানুষ দলের আদর্শের চাইতে যিনি আদর্শের পাহারাদার তাকে বেশী গুরুত্ব দিয়ে থাকে। আমজনতা আদর্শের চাইতে ব্যাক্তি নেতাকে বেশী অনুভব করে। সেই কারনেই বাংলাদেশের সকল সংসদীয় এলাকায় দল সমান ভাবে জনপ্রিয় নয়। কোথায়ও দল বেশী জনপ্রিয় কোথায়ও ব্যাক্তি বেশী জনপ্রিয়।

অঞ্চল বেধে দলের চাইতে যখন ব্যাক্তি  বেশী জনপ্রিয় হয় তখনই দলের আদর্শের চাইতে ব্যাক্তির প্রভাব বেশী কার্যকর হতে থাকে। একটি মাল্টিক্লাস পার্টিতে ব্যাক্তি গুরুত্বপূর্ণ হলেও আদর্শের চাইতে বড় নয়। ব্যাক্তির চাইতে দল জনপ্রিয় হলে সেই দলের স্থায়ীত্ব দীর্ঘমেয়াদী হয়ে থাকে। ব্যাক্তি যে কোন সময় দলের সাথে বেইমানী করতে পারে আদর্শিক ভাবে বিস্বস্থ মানুষ কখনো আদর্শের সাথে বেইমানী করে না। দলকে জনপ্রিয় করে তোলাই  একটি জনবহুল রাজনৈতিক দলের লক্ষ হওয়া উচিত। রাষ্ট্রের জন্য ও জনগনের জন্য কল্যাণকর কর্মকান্ড গনমুখী হওয়া উচিত এবং জনগনকে এই বিষয়ে অবহিত করে তাদের মতামতকে এবং সমর্থনকে আয়ত্ব করাই প্রশিক্ষিত রাজনৈতিক দলের প্রধান কাজ। ক্ষমতাকালীন সময়ে রাজনৈতিক দলের কর্মকান্ড রাষ্ট্রের উন্নয়ন ও রাষ্ট্রনীতির সাথে সম্পৃক্ততা রেখেই জনগনকে সম্পৃক্ত করতে হবে।

রাজনৈতিক দলের নেতা নির্বাচনও এম পি মনোনয়ন গতানুগতির ধারার পরিবর্তে আরো  আধুনিক যথোপযোগী হওয়া সময়ের দাবী। একজন সৎ আদর্শবান মানুষের জন্য রাজনীতিতে জায়গা সৃষ্টি করা জরুরী। রাজনীতিতে নেতা নির্বাচনের জন্য অর্থবিত্ত কোন ক্রমেই নিয়ামক শক্তি হতে পারে না। অন্যের বদন্যতা আর প্রতিযোগিতার  জন্য  উন্মুক্ত জায়গা সৃষ্টি করা রাজনৈতিক দলের কাজ নয়। এই প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকলে রাজনীতি একটি ধনীক-বনিক শ্রেনীর হাতে স্টাবলিষ্ট হয়ে যাবে। বিষয়ভিত্তিক প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষিত, মার্জিত, সৎ, নিষ্ঠাবান, ত্যাগি, দরীদ্র রাজনীতিবিদগন দলে অর্বাচিন হয়ে পড়বে। ক্রমান্বয়ে দলে স্তোকবাক্য জাতীয় অনুগত গৃহপালিত কর্মীয় সমন্বয়ে একটি ব্যাবসায়ীক প্রতিষ্ঠানে পরিনত হবে। সেই কারনেই দলে আর্থিক লুটপাটের সুবিধাভোগী নেতৃত্বের সৃষ্ট্রি হয়েছে। সংকট কালীন সময়ে গনবিচ্ছিন্ন  নেতা নিজেই একটি ভারী বস্তুতে পরিনত হয়, সে দলের ভার বহন করার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে।

একটি আদর্শিক রাজনৈতিক দলের নেতা উপর থেকে নির্বাচিত হতে পারে না। অর্থের বিনিময়ে উপর থেকে পদ ক্রয় করার পদ্ধতিতে নেতা তৈরী হয় না, অনুচর তৈরী হতে পারে। অনুচরের নেতৃত্বে অর্থের বিনিময়ে নিম্মমুখী অনুচর তৈরী হয়। এই প্রক্রিয়ায় নামে মাত্র দলের খোলস থাকলেও মূলত আদর্শ হারিয়ে দল একটি প্রাইভেট মার্কেটিং কম্পানীতে পরিনত হয়। আজকের সময়ের দাবী স্থায়ী পদ্ধতিতে জনসম্পৃক্ত তৃনমূলের সমর্থকদের সমন্বয়ে কর্মীদের অংশগ্রহন মূলক মতামতের ভিত্তিতে নেতা নির্বাচনের সিস্টেম চালু করতে হবে। আজকের বাংলাদেশ রুগ্ন রাজনৈতিক ভাইরাসে আক্রান্ত। রাষ্ট্রের রাজনীতি বহির্ভূত অংশ রাষ্ট্র পরিচালনায় সফল। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে ক্রিড়া, সাংস্কৃতি,তথ্যপ্রযুক্তি, বিজ্ঞান, গবেষনা,চিকিৎসা,আকাশ প্রযুক্তি,শান্তিরক্ষায় বাংলাদেশ অগ্রগামী অথচ এই সকল সফলার সম্মুখে একজন রাজনীতিবিদ করুনার পাত্র হতে পারে না।

বঙ্গবন্ধু, নেনসন মেনডেলা, মহাত্মা গান্ধী, লি কুইন,ইয়াসির আরাফাত,নেতাজী সুভাস চন্দ্র বসু,জহরলাল নেহেরু এই সকল ক্ষনজন্মা রাজনীতিবিদদের জন্য ইতিহাসে যতটুকু যায়গা বরাদ্ধ আছে, বিল গেটস্, রতন টাটা, মুকেশ আম্বানীর জন্য ইতিহাসে ততটুকু জায়গা বরাদ্ধ নেই। রাজনীতিবিদদেরকেই রাজনীতির জন্য জায়গা উন্মুক্ত করতে হবে। শিক্ষায় রাজনীতির প্রয়োজন না থাকলেও রাজনীতিতে শিক্ষার খুব বেশী প্রয়োজন। রাজনীতিতে শিক্ষিত জ্ঞানী অংশকে অবজ্ঞা কার সহজ হতে পারে কিন্তুু জ্ঞানের খালিস্থান জ্ঞান ব্যাতিত আর কোন উপাদান দিয়ে পূরন করা সম্ভব নয়। রাজনীতিতে সংস্কার খুব বেশী জরুরী। পুরাতন জরাজীর্ণ প্রাচীর আচমকা নীজে নীজে ভেংগে পড়ার পূর্বেই পরিকল্পিত ভাবে পুরাতনকে সংস্কার করে নুতন ধারা নির্মান করতে হবে। রাজনীতিতে নেতা নির্বাচন ভাগ্য নির্ভর নয় যোগ্যতা নির্ভর হতে হবে। রাজনীতি সাপ লুড্ডুর ছেলে খেলা নয়, জীবন মৃত্যুর খেলা।

 

লেখক

এডভোকেট, জর্জকোর্ট, লক্ষীপুর।

Facebook Comments


শিরোনাম
মন্ত্রিসভার প্রথম রদবদল হলো ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল থেকে ৫ দালাল গ্রেফতার, ২৫ টাকার ইনজেকশন ৩’শ টাকায় বিক্রি মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা ৩৫ হাজার টাকা  সাংবিধানিক স্বীকৃতির দাবি যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে রড দিয়ে পেটালেন শিক্ষক স্বামী ধানের দাম ১ হাজার ১০০ টাকার নিচে রাখা যাবে না: বাদশা বাংলাদেশি পাসপোর্টসহ শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ৫ রোহিঙ্গা আটক রাজধানীতে এসএ পরিবহন কুরিয়ার সার্ভিস থেকে এক লাখ পিচ ইয়াবা উদ্ধার  চলন্ত বাসে নার্স  তানিয়ার ধর্ষক ও হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবীতে নওগাঁয় মানব বন্ধন নওগাঁয় বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস পালিত নওগাঁয় জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির পরিচিতি, দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত নওগাঁ পৌরসভাকে মশামুক্ত করতে ডেমোক্রেসী ইন্টারন্যাশনালের সংবাদ সম্মেলন ”গ্রাম আদালত সক্রিয় করতে হলে বিচারিক প্যানেল সদস্যদের দক্ষতা বৃদ্ধি করা জরুরী” রহস্যময় জীবন সাঁকো এবার আমি দ্বিতীয় ইনিংস খেলবো: ওবায়দুল কাদের সোনার ধানে আগুন দিলেও ‘সরকার নির্বিকার’: দুদু বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার সময় সূচীতে পরিবর্তন ইতিহাস সেরা দুর্নীতি: ২ কোটি টাকার বালিশ ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনের ফল প্রকাশ, প্রিলিমিনারিতে উত্তীর্ণ দেড় লাখ চুয়াডাঙ্গার কুতুবপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুবকর সিদ্দিকী আর নেই প্রাথমিকে নিয়োগ পরীক্ষার প্রবেশপত্র ডাউনলোড করুন আজ থেকে এমপিওভুক্ত হচ্ছেন ১০ হাজার ৮৫ শিক্ষক খালেদা জিয়ার কারামুক্তি: রাজনীতির নতুন মোড়: সম্মুখে অলি-জামাত বালিশ! নওগাঁ ১৪টি মাদক মামলার আসামী কুখ্যাত মাদক ব্যবশায়ী পবন আটক
© All rights reserved © 2017 Onnodristy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com