ব্রেকিং নিউজ
সংবাদকর্মী আবশ্যক। আগ্রহীগণ সিভি, ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিসহ আবেদন করুন - onnodristynews@gmail.com/ news@onnodristy.com. মুঠোফোন : ০১৯১১২২০৪৪০/ ০১৭১০২২০৪৪০।

আমি ফোন দিলে বিরক্ত হইয়েন না যেন …

মোস্তাফিজ রহমান।।

সেদিন কোন নির্দিষ্ট ডিউটি ছিলোনা। হঠাৎ ডিউটি অফিসার এএসআই ছোট ভাই Ashraful Islam এর ফোন। স্যার একটা অভিযোগ আসছে, গরীব মহিলা, স্বামী মারধোর করে বের করে দিয়েছে, যাবেন না কি একটু? বললাম ঠিকাছে বসতে বলো পারলে একটা দরখাস্ত লিখিয়ে ওসি স্যারকে দিয়ে এন্ডোস করিয়ে রেখো আসছি আমি।

ফেবু ছেড়ে রুম থেকে এলাম ডিউটি অফিসারের রুমে। দেখলাম এক ত্রিশোর্ধ নারী একটা কিশোরী কন্যাকে পাশে বসিয়ে আরেক দু বছরের কন্যাকে কোলে নিয়ে বসে আছে।

ডিউটি অফিসারের চেয়ারে বসে জিজ্ঞেস করলাম, কি সমস্যা বলেন দেখি। নারীটি বলা শুরু করলো। স্যার, আমার বিয়ে হয়েছে ষোলো বছর। পাশের মেয়েটিকে দেখিয়ে বললো ও এইটে পড়ে, আরেকটি ছেলে আছে ক্লাস টুয়ে পড়ে। আর এর বয়স দুইবছর। বিয়ের পর থেকেই জ্বালায় আমার স্বামী। একদিন কাজ করেতো দুইদিন কাজ করেনা। কিছু বললেই মারে। গত এক বছরে পাঁচ বার মারছে। বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। বাবা মা মানসম্মানের ভয়ে বারবার ফেরত পাঠিয়েছে। এখন সে আরেকটা মেয়ের সাথে মোবাইলে কথা বলে মানে প্রেম করে। অহন আমি আর ভালা না, আমারে তার পছন্দ না।

স্যার আজকে মেরে মেয়েকে বলেছে বাজার থেকে ব্লেড আনতে যাচ্ছি এসে তোর মায়ের চুল কামিয়ে বের করে দেবো। আমি জানি সে যা বলেছে তাই করবে। তাই আমি চলে আসছি তাড়াহুড়া করে। আসার সময়ে ছোট ছেলেটিকে পাইনি তাই আনতে পারি নাই। ও আমাকে ছাড়া থাকতে পারেনা। আমাকে না পেলে খুব কাঁদবে স্যার। আমার ছেলেটিকে এনে দেন আমি বাপের বাড়ি চলে যাবো স্যার আমি আর ওর ঘর করবো না। স্যার দয়া করেন। বলেই হুহু করে কেঁদে উঠলো।

আমি ওকে কাঁদতে দিলাম। শুনেছি লোকে কাঁদলে মন একটু হালকা হয়। একটু ধাতস্থ হলে, বললাম, স্বামীর নঃ দেন আসতে বলি, দেখি বুঝিয়ে শুনিয়ে আমার হাত থেকে দেয়া যায় না কি? সাথে সাথে কিশোরী মেয়ে বলে উঠলো না স্যার আমার মা আর ভাইবোন সহ আমি আর যাবোনা ঐ বাড়ি। আমাদের এবার হাতে পেলে মেরেই ফেলবে।

বুঝলাম ঘটনার জল অনেক দুর গড়িয়েছে। এতো সহজে এই ভাঙ্গা মন জোড়া দেয়া যাবেনা। অন্যভাবে দেখতে হবে। এদিকে আরেক অফিসার একটা ইম্পর্টেন্ট কাজে আমাকে নিয়ে যাবে আগেই বলে টাইট শিডিউল করা। এখন আমার ওখানে যেয়ে স্বামীকে নিয়ে আসাও সম্ভব না। যদি ফোন করে ডেকে আনতে পারি তবে কিছু সময় কথা বলে একটা কিছু করা যায়।

এদিকে বাইরে সন্ধা লাগছে। আমার নিশি যথারীতি ফোন করেছে। ধরে বললাম আম্মু বলো। নিশি শুরু করলো, বাবা আমি এখন নুডলস খাবোনা। আমি বললাম তাহলে আমার রাজকন্যা কি খাবে? নিশি বললো তুমি ভাইয়াকে বলো আমাকে চটপটি দিয়ে যেতে। আমি বললাম ঠিকাছে আম্মু বলছি। তুমি রাখো, আমি ব্যস্ত, সামনে লোক আছে। নিশি বললো ও তোমার শালিস না? আচ্ছা শুভ সন্ধা বাবা, রাখি, ভাইয়াকে বলো কিন্তু। আমি বললাম বলবো রাখো শুভ সন্ধা।

সন্তান বাৎসল্যে আমি ভুলেই গিয়েছিলাম আমার সামনে আরো দুটি বাচ্চা মেয়ে বসে আছে যারা আমাদের বাবা মেয়ের বন্ধু সুলভ কথোপকথন শুনছে। ফোন করলাম ডানার নঃ এ। আব্বু কোথায়? ডানা বললো আব্বু আমি বাজারে। আমি বললাম, এখনি নিশির জন্যে চটপটি দিয়ে আসবে বাসায়। ছেলে রাগতস্বরে বললো এখনই কেন একটু পরে একবারে যাই? আমি বললাম না এখনই যাবে। বোনের জন্যে এটুকু করতে হয় আব্বু! ছেলে জানে আমি নিশির ব্যপারে খুব সেনসেটিভ। বললো আচ্ছা যাচ্ছি। আমি বললাম গুড বয়। যাও বেশী বেশী আদর করবো কেমন?

কথা বলে ফোন কেটে দেখি, কিশোরী মেয়েটি কেমন এক ঘোরলাগা দৃষ্টিতে আমার দিকে চেয়ে রয়েছে। বুঝলাম বড্ডো ভুল করে ফেলেছি। এই পিতৃস্নেহ বঞ্চিত মেয়ে দুটির সামনে আমি আমার ছেলেমেয়েদের সাথে এমন আন্তরিকভাবে কথা বলে। আমাদের বাবা মেয়ে ছেলের কথা গুলো ওদের কাছে নিদারুণ কষ্টের।

মনে মনে অনুতপ্ত হলাম। এবার ফোন নঃ নিয়ে ফোন করলাম ওদের বাবাকে। ফোন ধরতেই নিজের পরিচয় দিয়ে বললাম, বৌ পেটাও বেটা তোমার বৌ আসছে থানায় কেস করেছে। যদি আমার যেয়ে তোমাকে আনতে হয় তবে খবর আছে। ভালোয় ভালোয় যদি ত্রিশ মিনিটের মধ্যে থানায় আসতে পারো তবে কি হয়েছে কার দোষ শুনে একটা ব্যবস্থা করতে পারি। আর যদি না আসো তবে নারী নির্যাতন দমন আইনে মামলা খাবা। পেশাদারিত্বের অভিজ্ঞতা বুঝে ফেললাম রুঢ় ব্যবহারে কাজ হয়েছে ঐ লোকের। গলার আওয়াজ মিইয়ে যেয়ে বলছে স্যার আপনে মামলা নিয়েন না। আমি আসতাছি। আমার বৌয়ের মাথায় একটু সমস্যা আছে। আমি বললাম তাড়াতাড়ি কিন্তু। বললো জি স্যার।

ফোন কেটে ওদের বললাম আপনারা পুকুর ঘাটে যেয়ে বসেন ও আসুক দেখি একটা ব্যবস্থা হয়ে যাবে। ওরা ঘাটে গেলো আমি বাইক নিয়ে চা খেতে বাজারে যেতে যেতে ভাবলাম ওরা বোধহয় এই অশান্তির কারনে দুপুরেও খায়নি আর এখন সন্ধা। তার উপরে আমি নিশিকে চটপটি খেতে বলেছি। ওদের ও তো খেতে ইচ্ছে করে। তাই বাজারে যেয়েই চা না খেয়ে আগে তিনটি সিঙ্গারা তিনটি পিঁয়াজু আর এক বোতল পানি নিলাম। বাইক টেনে ঘাটে এসে বললাম কিশোরীকে নাও মা, বোন আর মা কে নিয়ে খাও, তোমাদের বাবা এলেই সব ঠিক হয়ে যাবে। বাবা মায়ের সাথে ঝগড়া হতেই পারে, আবার মিটমাটও হয়ে যায় তাই না?

দেখলাম কিশোরী মেয়েটা লজ্জায় নিতে চাচ্ছেনা। তাই বললাম আমি তো মামা তাই না? আমাকে স্যার ডাকবেনা। আমি ভাগ্নীদের খাওয়াতে পারিনা মা, নাও খাও। মহিলাটি ডুকরে আবারো কেঁদে উঠলো, স্যার না বলে এবার সাহস করে বললো জানেন ভাই আমারো একটা ভাই আছে। ঢাকায় গার্মেন্টসে সুপারভাইজার এ চাকরি করে ঠিক আপনার মতো আমার ছেলেমেয়েদের আদর করে। ভাই আপনি যাই বলেন আমি কিন্তু ওর ঘরে আর যামুনা।

আমি বললাম সে দেখা যাবে আগে আসুক তো তারপরে দেখা যাবে এখন খেয়ে নেন আগে। বাচ্চাদের ক্ষিধে পেয়েছে মনে হয়। ওরা কি যে এক মনভালো করা চাহনিতে চেয়েছিলো আমার দিকে, বিশ্বাস করেন সেটা না দেখলে, লিখে বোঝানো যায় না।

ওদের খাওয়ার সময় যেন স্বর্গ থেকে পরীরা নেমে এসে নাচ শুরু করলো, হয়তো ওদের এই খুশীতে আকাশ থেকে একটা উল্কাও ছুটে খসে পড়লো। আমি দেখিনি কিন্তু মনে হলো খুব খুশী করা একটা পরিবেশ।

মাত্র ত্রিশ টাকা আর পানি বিশ টাকা মোট পঞ্চাশ টাকায় এতো রাশি রাশি খুশী কেনা যায় ভাবতেই পারছিনা। আহারে যদি আরো, আরো টাকার মালিক হতাম তবেতো রোজ রোজই এমন স্বর্গ কিনে নিতে পারতাম।

আবার বাজারে যেয়ে চা খেতেই আমার সেই অফিসার এসে হাজির। বললো সোর্স অপেক্ষা করছে এখনই যেতে হবে এক ওয়ারেন্টের আসামিকে এরেস্ট করতে।

তাই ফোনে বললাম ডিউটি অফিসারকে যেন আমার অবর্তমানে স্বামী স্ত্রীর মনোমালিন্য মিটিয়ে বাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করে। না পারলে আমি এসে করবো। ও বললো স্যার ঠিকাছে। আরো বললাম আমার ফোন নঃ টা যেন মহিলাকে দিয়ে দেয় কোন সমস্যা হলেই ফোন দেয় যেনো।

পরে আসামি ধরে ফিরে শুনেছিলাম মোটামুটি মিটামাট করে বাড়ি গেছে সবাই। আজ মহিলাটি সন্ধায় ফোন দিয়েছিলো। বললো ভাই আপনার ধমকে কাজ হইসে । এখন মোটামুটি ভালোই ব্যবহার করছে। আমি ফোন দিলে বিরক্ত হইয়েন না যেন ভাইজান।

বললাম আরে না, বোন তো ভাইকে ফোন দেবেই। ওরা যাতে ভালো থাকে সেই শুভকামনা অহর্নিশ। আর বন্ধুদেরকে শুভ রাত্রি।

Facebook Comments


শিরোনাম
মনিবুর রহমান’র কবিতা বাগেরহাট-৩ আসনে লড়তে চান ২৪ জন তৃনমূলে পরিচিতি নেই অধিকাংশ প্রার্থীর নওগাঁয় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ভ’মিকা বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত নওগাঁয় কাঁঠালের পাতায় শিক্ষার্থীদের নবান্ন উৎসব আয়োজন চিরিরবন্দরে নবান্ন উৎসবে নানা আয়োজন ঝিনাইদহে ফেন্সিডিলসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক করেছে যবিপ্রবিতে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল  বেরোবিসাস সাংবাদিকদের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে যবিপ্রবিসাসের নিন্দা ও প্রতিবাদ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে অসহায়দের মাঝে বন্ধনের শীতবস্ত্র বিতরন  কালীগঞ্জে ৩৬ পিস ইয়াবাসহ এক নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক রাজনীতির নায়ক-ভিলেন ও শেষ দৃশ্য স্বস্তিতে চাকরির সুযোগ আইনজীবীদের মহাসমাবেশে যাচ্ছেন ড. কামাল ফারহানা হৃদয়িনীর কবিতা।। ‘সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশনের দিকে তাকিয়ে গোটা জাতি’ যশোরের বেনাপোল পুটখালী সীমান্ত থেকে ৪৫ বোতল ফেন্সিডিল সহ আটক ১ অ্যাম্বুলেন্সের ধাক্কায় শার্শায় কৃষক নিহত নেইমারের দেওয়া একমাত্র গোলে উরুগুয়ের বিপক্ষে জয় পেল ব্রাজিল ৫০ আসনে নির্বাচন করতে চাই জামায়াতে ইসলামী বয়স থামাতে চান? ব্যবহার করুন এই প্যাকগুলো শ্রীলঙ্কার পার্লামেন্টে এবার মরিচের গুঁড়া, পুলিশের নজিরবিহীন হস্তক্ষেপ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সম্পাদকদের সহযোগিতা চাই ঐক্যফ্রন্ট আমেরিকার স্বেচ্ছাচারী ও আইন ভঙ্গকারী আচরণের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা উচিৎ: ইরান মক্কা ও মদিনায় সাংবাদিক জামাল খাশোগির জানাজার নামাজ আদায় যশোর শার্শায় দূর্বত্তদের বোমা হামলায় যুবলীগ নেতাসহ আহত-৩
© All rights reserved © 2017 Onnodristy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com