নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিচ্ছে অন্যদৃষ্টি। আগ্রহীগন সিভি পাঠান- 0nnodrisrtynews@gmail.com
২০ জানুয়ারী ২০২১, ০৭:০০ অপরাহ্ন

উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের প্রতিষ্ঠানে সহকারী অধ্যাপক পদ বিলুপ্তির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি

এম. এ মতিন
বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৬:০২ অপরাহ্ন

এমপিওভুক্ত শিক্ষক কর্মচারীদের এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধন কমিটি গত ২৩.১১. ২০২০ তারিখ এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনীর খসড়া অনুমোদন করে যা মাদ্রাসা ও কারিগরি অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়।

প্রকাশিত নীতিমালায় দেখা যায়  উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান প্রতিষ্ঠানে সহকারী অধ্যাপক পদ বিলুপ্ত করে জ্যেষ্ঠ প্রভাষক পদ সৃষ্টির প্রস্তাব করা হয়েছে। এরুপ প্রস্তাবে বেসরকারী এমপিওভূক্ত প্রভাষকরা চরমভাবে হতাশ হয়েছে।

তাছাড়া জ্যেষ্ঠ প্রভাষক পদ সৃষ্টি করা হলেও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের প্রতিষ্ঠানে উপাধ্যক্ষ বা অধ্যক্ষ পদে তাদের আবেদনের সুযোগ রাখা  হয়নি।

ফলে একজন প্রভাষক যোগ্যতা থাকা সত্বেও সহকারী অধ্যাপক পদ না পাওয়ার কারনে উপাধ্যক্ষ বা অধ্যক্ষ পদে আবেদন করতে পারবে না।

অপর দিকে একই যোগ্যতা ও একই প্রতিষ্ঠানে এনটিআরসিএ কতৃক নিযোগের সুপারিশ প্রাপ্ত হয়ে একজন স্নাতক পর্যায়ের প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ প্রাপ্ত হয়ে সহকারী অধ্যাপক, উপাধ্যক্ষ বা অধ্যক্ষ হবেন।

তাছাড়া একজন প্রভাষক স্নাতক পর্যায়ের প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ প্রাপ্ত হলেও যদি তার বিষয় স্নাতক পর্যায়ে অনুমোদন বা এমপিও না থাকে তাহলে তিনি সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি না পেয়ে জ্যেষ্ঠ প্রভাষক পদে পদোন্নতি পাবেন। অথচ তার জুনিয়র অপরজনের বিষয় স্নাতক পর্যায়ে এমপিওভূক্ত হওয়ায় তিনি সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পাবেন ।

নীতিমালায় এমফিল ও পিএইচডি ডিগ্রীধারী দের জন্য অভিজ্ঞতা শিথিল করা হলেও শতাংশ প্রথা বা অনুপাত এর কারণে একজন প্রভাষক পদোন্নতি পাবেন না।

অনুপাত এর কারণে আগে সাত জনে দুইজন পদোন্নতি পেলেও সংশোধিত নীতিমালায় ১:১ অনুপাতে সাত জনে ৩ জন পদোন্নতি পাবেন । এতে করে প্রভাষকরা বঞ্চিত থেকেই যাবে ।

মাদ্রাসা অধিদপ্তরে বিষয়টি আরও জটিল । আলিম স্তরের একজন প্রভাষক বা জ্যেষ্ঠ প্রভাষককে উপাধ্যক্ষ বা অধ্যক্ষ পদে আবেদনের সুযোগ না রাখা হলেও মাধ্যমিক বা সমমানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সহসুপার বা সুপারকে উপাধ্যক্ষ বা অধ্যক্ষ পদে আবেদনের সুযোগ দেয়া হয়েছে ।

এ সকল বৈষম্য নিরসন করে নীতিমালা সংশোধনের দাবী করেন প্রভাষকবৃন্দ।

মানব বন্ধনে পদোন্নতি বঞ্চিত প্রভাষক সমাজের প্রধান সমন্বয়কারী মোঃ জহিরুল ইসলাম , মুখপাত্র এম.এ মতিন,  সমন্বয়কারী (মিডিয়া) মোহাম্মদ আলী শামীম, সমন্বয়কারী রতন কুমার সরকার, আব্দুল হালিম , মনিরুল ইসলাম, মিজানুর রহমান ,নাসরুল্লাহ অসীম কুমার চক্রবর্তী , বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক পরিষদের সভাপতি জ্যোতিষ মজুমদার,  প্রত্যুষ রায়, শহিদুল ইসলাম , শান্ত সরকার,   বাবেশিকফো  সহ সভাপতি মোদাচ্ছির  আলম ,যুগ্ম-মহাসচিব জি এম শাওন, রেহান উদ্দিন , সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল ইসলাম মাসুদ ,প্রচার সম্পাদক মতিউর রহমান দুলাল,আব্দুর রহমান,   বদলী বাস্তবায়ন কমিটির সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম  প্রমুখ অংশগ্রহণ করেন ।

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো সংবাদ