নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিচ্ছে অন্যদৃষ্টি। আগ্রহীগন সিভি পাঠান- 0nnodrisrtynews@gmail.com
২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৯:৫৫ পূর্বাহ্ন

সেতু নির্মাণ কাজের ভূমি সংক্রান্ত বিরোধ মিটাতে চেয়ারম্যান মোবারক

আব্দুল বারেক ভূইয়া, শরীয়তপুর
বুধবার, ২০ জানুয়ারী, ২০২১, ৮:২৯ অপরাহ্ন
সেতু নির্মাণ কাজের ভূমি সংক্রান্ত বিরোধ মিটাতে চেয়ারম্যান মোবারক

শরীয়তপুর জাজিরা উপজেলা মূলনা ইউনিয়নের ঐতিহাসিক লাউখোলা হাট ,পদ্মা নদীর উপনদীতে সেতু নির্মাণ কাজের ভূমি সংক্রান্ত বিরোধ মিটাতে জাজিরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোবারক আলী সিকাদার ১৯ জানুয়ারী মঙ্গলবার দুপুর ১২ টায় ছুটে যান সরজমিনে।

জাজিরা উপজেলার ঐতিহাসিক লাউখোলা হাট ও সেনেরচর ইউনিয়ন বাসীর যোগাযোগ ব্যবস্থা তরান্বিত করতে লাউখোলা হাট সংলগ্ন পদ্মা নদীর উপনদীতে ৯৫ মিটার দৈর্ঘ একটি সেতু নির্মাণ কাজ শুরু করেছে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর।

এই সেতুটি নির্মাণ হলে কৃষক শ্রমিক সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার প্রায় বিশ হাজার জনমানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা তরান্বিত হবে, এমনটাই বলছেন স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ। যেই স্থানে সেতুটি নির্মাণ হবে ঐ সেতুর দুই তীরে রয়েছে ব্যক্তি মালিকানা প্রায় চল্লিশ শতাংশ জমি যাহা লাউখোলা হাটের স্যো-মেল ব্যবসায়ী মোঃ ইসমাইল মাদবরের নিজস্ব সম্পত্তি।

উক্ত ভূমির মালিক, ইসমাইল মাদবর উপজেলা প্রকৌশলী ওহিদুজ্জামানের কাছে জমির ক্ষতি পূরণ দাবী করলে, জাজিরা উপজেলা প্রকৌশলী ওহিদুজ্জামান, ঠিকাদার বাবুল সরদার, ইসমাইল খান ও দেলোয়ার সিকদারকে নিয়ে মূলনা ও সেনেরচর বাসীর যোগাযোগ ব্যবস্থার কথা চিন্তা করে, বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে ঐতিহাসিক লাউখোলা হাটে চলে আসেন, চেয়ারম্যান মোবারক আলী সিকদার। উপস্থিত জনসাধারণকে লক্ষ্য করে বলেন, আগামী দিনে সেতু নির্মাণ হলে সেনেরচর ও মূলনা বাসীর যোগাযোগ ব্যবস্থা তরান্বিত হবে, জমি-জমার মূল্য বাড়বে।

সেনেরচর ও লাউখোলা বাসীর ভাগ্য পরিবর্তন হবে বলে এ বিষয়ে জনসাধারণকে বোঝানোর চেষ্টা করে। উক্ত ভূমির মালিক ইসমাইল মাদবর গণমাধ্যমকে জানান, আমাকে যদি জমির মূল্য অথবা ক্ষতিপূরণ দেওয়া না হয় আমি আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো সংবাদ