নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিচ্ছে অন্যদৃষ্টি। আগ্রহীগন সিভি পাঠান- 0nnodrisrtynews@gmail.com
০১ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৩৯ অপরাহ্ন

মাদরাসা পড়ুয়া ছেলে ও বোরকা পরা মা’র ক্রিকেট খেলা পোশাকই প্রতিবন্ধকতা না ধর্ম

অন্যদৃষ্টি ডেস্ক
সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৭:১৭ অপরাহ্ন

আমরা মুসলিম আমরা বাঙালী বা অন্য ধর্মের অনুসারী কিন্তু আমাদের আসল পরিচয় আমরা বাঙালী। আমাদের কেউ এ্যারাবিয়ান, বেদুইন, পাঞ্জাব, আমেরিকান বা চায়নিজ বলে ডাকবেনা ডাকবে শুধু বাঙালী বলে। আর আমরা বাঙালী আমাদের নিজস্ব কালচার, নিজস্ব ঐতিহ্য এবং নিজস্ব ধর্মীয় অনুভূতি আছে নিজস্ব স্বাধীন ভূখণ্ড।

আপনি আপনার জায়গা থেকে আপনার ধর্ম পালন করবেন কোন প্রতিবন্ধকতা থাকবেনা এটাই হলো বাঙালীর বড় ঐতিহ্য। কিন্তু আজ আমরা কোন পথে হাটছি, কেউ যদি তার নিজ ধর্মকে ধর্মের নিয়ম অনুযায়ী ধর্ম পালন করতে যায় তাহলে অনেক মন্তব্য বক্তব্য দিতে কম করিনা। আসলে মনে হচ্ছে এখানে বড় ইস্যু হলো ধর্ম নাই পোশাক। পোশাক বা দাড়ী দেখলেই কিছু সমাজবাদী নারীবাদীরা বিভিন্ন বুলি উড়ায়। সাপস আপনি একজন হিন্দু বা অন্য ধর্মের অনুসারী আর আপনি ধর্মীয় নিয়ম অনুযায়ী ধর্ম পালন করবেন তারপরও হয়তো কিছু মন্তব্য আসবে আর এই ধরনের অসুস্থ সংস্কৃতির বা অসুস্থ নোংরা মনের নারী বা পুরুষ কিছু থাকবে।

আবার অধিকাংশ মানুষ উৎসাহ দেওয়ার জন্য বা প্রশংসা করার নিমিত্তে অনেক মন্তব্য বক্তব্য লেখালেখি করবে। কিন্তু যেটা পর্যবেক্ষণ করে দেখলাম সেটা হলো ভালো কাজের ভালো কমেন্ট আর প্রশংসা বেশি হয় । ২/১ জন নোংরা অসভ্য শিক্ষিত ধর্মদ্রোহী লোক আছে এদের সংখ্যা একবারেই নগন্য ।

সম্প্রতি পত্রিকাসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ ভাইরাল হয়েছে বোরকা পরা এক মা আর মাদরাসা পড়ুয়া ছেলের ক্রিকেট খেলার কিছু ছবি। কখনও মায়ের হাতে বল ছেলের হাতে ব্যাড আবার ছেলের হাতে বল মায়ের হাতে ব্যাড। বিভিন্ন ক্যাপসনে ছবিগুলো প্রচার বা ভাইরাল হয়েছ। অনেকে প্রশংসা বা ভালো মন্তব্য করেছে অন্যদিকে ধর্মের দোহায় দিয়ে বিরুপ মন্তব্যও করেছ। লিঙ্গ যাইহোক না কেন ধর্মীয় নিয়ম মেনে সে সব কিছু করতে পারবে। সন্তানের আব্দার রক্ষা করতেই আর ক্রিকেটার বানাতেই ক্রিকেট খেলতে মাঠে নেমেছে এই মা। আমরা এখান থেকে ২টি শিক্ষা পেলাম সেটা হলো ধর্মীয় নিয়ম মেনে নারীরা সব কর্মক্ষেত্রে যেতে পারবে আর সন্তানের আব্দার রাখতে মা পারেনা এমন কাজ নেই।

এই মায়ের পোশাক নিয়ে কথা উঠেছে- পোশাকে মনে হচ্ছেনা বাঙালী, পোশাকে আফগান পাকিস্তান মনে হচ্ছে। তাহলে বাঙালী সংস্কৃতি কি বেপর্দা নারীর দেহ প্রকাশ করা? না এটা না। এটা বাঙালী সংস্কৃতির বৈশিষ্ট্য হতে পারেন। বাঙালী নারীর ঐতিহ্য এখনও সারা বিশ্বে সমাদৃ। এরা লাজুক, সংগ্রামী, রক্ষনশীল, কর্মঠ, গৃহিনী, আর প্রতিবাদী আবার ধর্মীয় অনুভূতিতে আপোষহীন অবয়ব এক বাঙালী সংস্কৃতির কর্ণধার। মাদরাসা পড়ুয়া ছেলের মায়ের ইচ্ছা কত উচ্চে দেখেন মা স্বাক্ষাতকারে বলেছেন আমার ছেলেকে প্রথমে কুরআনের হাফিজ বানাবো তারপর ভালো ক্রিকেটার বানানোর শখ । ছেলে তার বক্তব্যে বলেছেন আমার মামা একজন খেলোয়াড় আমিও ইনশাআল্লাহ হতে পারবো।

প্রতিভা কখনও কেউ চেপে রাখতে পারেনা কোন না কোন সময় উজ্জ্বল প্রতিভা বিকশিত হবে সে মাদরাসা হউক বা জেনারেল হউক। ধর্মীয় নিয়ম মেনে সকল প্রতিবন্ধকতা ভেঙে অপসংস্কৃতিকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে এগিয়ে যাক বাঙালী নারী।

লেখক-কলামিস্ট ও সাংবাদিক

মুহাঃ সাইফুর রহমান বাদল

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো সংবাদ