নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিচ্ছে অন্যদৃষ্টি। আগ্রহীগন সিভি পাঠান- 0nnodrisrtynews@gmail.com
২২ অক্টোবর ২০২০, ০৬:২৩ পূর্বাহ্ন

নওগাঁয় এক গৃহবধূকে বস্তাবন্দি করে রাস্তার ধারে ফেলেগেছে দূর্বৃত্তরা

আর আর চৌধুরী, নওগাঁঃ
শনিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২০, ৮:৪৩ পূর্বাহ্ন

নওগাঁয় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্রকরে  গভীররাতে এক গৃহবধূকে বাড়ি থেকে তুলেনিয়ে যাওয়ার পর মারাগেছে ভেবে ঐ গৃহবধূকে বস্তাবন্দি করে রাস্তার ধারে ফেলে গেছে দূর্বৃত্তরা। রাতেই ঐ গৃহবধূকে অঙ্গান অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা সদর হাসপাতালে ভর্তির পর দ্বায়িত্বরত চিকিৎসকরা রাতেই জেলা সদর হাসপাতালে রের্ফাড  করেছেন। সংবাদ সংগ্রহকালে ঐ গৃহবধূ নওগাঁ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ঘটনার সংবাদ পেয়ে ঐ রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন থানা পুলিশ। সম্পতি এঘটনাটি ঘটেছে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার রহিমপুর গ্রামে।

নওগাঁ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রহিমপুর গ্রামের জয়নাল আবেদীনের স্ত্রী মোর্শেদা বেগম (৩২) প্রতিবেদককে জানান, আমি দীর্ঘদিনধরে গ্রামের একটি মাজার দেখাশুনা করে আসছি। মাজার দেখাশুনার কারনে, আমাকে নিয়ে আমার প্রতিবেশীরা প্রায় কুটক্তি করতো। ঘটনারদিন বুধবার বিকালেও আমার শরিকান প্রতিবেশী কুটক্তি করলে আমি প্রতিবাদ করি। এঘটনায় সন্ধার পর আমার প্রতিবেশীর আত্বীয় সহ কয়েকজন কয়েকটি মোটর সাইকেল নিয়ে আমার বাড়িতে এসে প্রথমে আমাকে হুমকি ও গালিগালাজ করেন এবং আমার স্বামীকে মারবেন বলে তারা প্রতিবেশীর বাড়িতে আশ্রয় নিলে। আমি আমার ছেলেকে তার বাবার কাছে খবর দেওয়ার জন্য চান্দা বাজারে দোকানে পাঠিয়ে দেই।

খবর পেয়ে আমার স্বামী তারাহুরা করে বাসায় এসে ঘটনাশুনে স্থানিয় সাবেক ইউপি সদস্য ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান রাম প্রসাদ কন্ডু ও শহিদুল কে জানালে তারা রাতেই বাড়িতে এসে ঘটনাশুনে পরের দিন বিষয়টি দেখার কথাবলে চলে যান। এসময় আমার স্বামীও দোকানের মালামাল তুলতে দোকানে গেলে আমি ঘড়ের ভেতর গিয়ে শুয়েপড়ি। এরিমাঝে দেখতে পাই ঘড় ধোয়াতে আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে এঅবস্থায় ভঁয়ে আমি ঘড়ের দরজা খুলে আঙ্গিনায় এসে ৩/৪ জনকে মুখোঁসপড়া অবস্থায় দেখতে পেয়ে ডাক চিৎকার শুরু করার পর মুখোঁসধারীরা আমাকে ঝাপটে ধরেন এরপর আমি হাসপাতালে।

গৃহবধূর স্বামী জয়নাল আবেদীন জানান, আমি দোকান রেডি করে বাড়িতে ফেরার মহূর্তে খবর পাই যে আমার ঘড়ের জানালার পার্শ্বে জৈনক ব্যাক্তির থাকা খড়ের পালায় আগুন দেওয়া হয়েছে এক পর্যায়ে বাড়িতে গিয়ে আমার স্ত্রী নিখোঁজ এর ঘটনাটি জানার পর  আমি সহ গ্রামের লোকজন ও স্বজনরা স্ত্রী মোসের্দা বেগমকে খুজতে থাকি প্রায় দের ঘন্টাপর গ্রামের রাস্তার পার্শ্বে একটি চটের বস্তা ও দুটি পা বেড়িয়ে থাকতে দেখতে পান লোকজন এসময় বস্তার ভেতর হাত ও মুখ বাধা ও অঙ্গান অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে মোর্সেদার মাথায পানি দেওয়ার পরও জ্ঞান না ফেরার কারনে রাতেই উপজেলা হাসপাতালে নেওয়া হয় এবং বর্তমানে নওগাঁ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে জানিয়ে জয়নাল আবেদীন আরো বলেন, ঘটনার সংবাদ পেয়ে রাতেই মহাদেবপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ছোট বোন মোর্সেদা বেগম দূর্বৃত্তের হামলায় হাসপাতালে থাকার খবর পেয়ে ঢাকা থেকে আসা বড় বোন মর্জিনা হাসপাতাল বেডে বোনের পার্শ্বে বসে থাকা অবস্থায় বলেন, আমরা গরীব মানুষ, এজন্য আমার বোনের উপর নির্যাতন চালানো হয়েছে এবং মারাগেছে ভেবে বস্তার মধ্যেকরে রাস্তার ধারে ফেলেগেছে জানিয়ে তিনি ন্যায় বিচার দাবী করেন।

এব্যাপারে মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল প্রতিবেদককে জানান, ঘটনার সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে রাতেই থানা থেকে অফিসার সহ পুলিশ ফোর্স পাঠানো হয়েছিলো। এছাড়া হাসপাতালে গিয়ে ও ঐ গৃহবধূর খোঁজখবর নেওয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন, ঘটনাটি তদন্ত পূর্বক সঠিক ঘটনা উদঘার্টন সহ জড়ীতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ পদক্ষেপ নেওয়া হবে

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো সংবাদ