নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিচ্ছে অন্যদৃষ্টি। আগ্রহীগন সিভি পাঠান- 0nnodrisrtynews@gmail.com
০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:৫০ অপরাহ্ন

হেফাজতের নেতৃত্ব নিতে জামায়াত-শিবিরের চক্রান্ত

অন্যদৃষ্টি ডেস্ক
শনিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০২০, ৮:৫৯ অপরাহ্ন
হেফাজতের নেতৃত্ব নিতে জামায়াত-শিবিরের চক্রান্ত

হেফাজত ইসলামের নেতৃত্বের দখল নিতে জামায়াত-শিবির নানামুখী চক্রান্ত করে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন সংগঠনটির একাংশের নেতারা।

শনিবার (১৪ নভেম্বর) ঢাকা এবং চট্টগ্রামে আলাদা সংবাদ সম্মেলন করে তারা এসব অভিযোগ করেন।

বাবুনগরী অংশের আগামীকালের রোববার (১৫ নভেম্বর) সম্মেলন বন্ধ ঘোষনারও দাবি জানান তারা। হাটহাজারী মাদ্রাসা এবং হেফাজতের নেতৃত্ব নিয়ে গত কয়েক মাস ধরেই চলে আসছে সংগঠনটির অভ্যন্তরীণ বিরোধ। এরই জের ধরে মাদ্রাসা পরিচালনা থেকে সংগঠনের মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরীকে বাদ দেয়া হয়। কিন্তু পরবর্তীতে জামায়াত-শিবিরের সমর্থন নিয়ে বাবুনগরী অংশ হাটহাজারী মাদ্রাসায় আল্লামা শফিকে জিম্মি অবস্থায় রেখে তার ছেলে আনাস মাদানীকে মাদ্রাসা পরিচালনা থেকে অপসারণে বাধ্য করলে বিরোধ প্রকাশ্যে রূপ নেয়।

এর মাঝে ১৮ সেপ্টেম্বর আল্লামা শফি মারা গেলে শুরু হয় শীর্ষ নেতৃত্ব নিয়ে উভয় গ্রুপের তোড়-জোড়।

এবার নেতৃত্ব পুরোদমে আধিপত্য নিতে ১৫ নভেম্বর হাটহাজারী মাদ্রাসায় ডাকা হয়েছে হেফাজতে ইসলামের বিশেষ সম্মেলন। আর এই সম্মেলনের বিরোধিতা করে শনিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে আল্লামা শফির পরিবারের সদস্য এবং অনুসারীদের একাংশ।

এ সংবাদ সম্মেলন থেকে আল্লামা শফিকে পরিকল্পিত হত্যার অভিযোগের পাশাপাশি হাটহাজারী মাদ্রাসার সম্মেলন বন্ধের দাবি জানানো হয়।

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মাঈনুদ্দিন রুহী বলেন, ‘আদর্শিকভাবে জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে আমাদের একটা বেমিল দীর্ঘদিনের। জামায়াত-শিবির এবং রাজনৈতিক কোনো এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য আমরা নাই। আমরা ছিলাম না। আমরা যাই করি কোনো রাজনৈতিক দলের সিঁড়ি হিসেবে ব্যবহার হতে চাই না।’

এদিকে, রাজধানী ঢাকায় একই দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে হেফাজতে ইসলামের মুখপাত্র মুফতি ফয়জুল্লাহ অংশ। তারাও আল্লামা শফির অনুসারী হিসেবে পরিচিত। জামায়াত-শিবিরের সমর্থন নিয়ে জুনায়েদ বাবুনগরী অংশ হেফাজতের নেতৃত্ব নিতে নানামুখী ষড়যন্ত্র করছে বলে তারা অভিযোগ করেন।

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, ‘শহীদ আল্লাহমা আহমদ শফিকে (র.) সুপরিকল্পিতভাবে শহীদ করে বিভিন্ন কওমি মাদ্রাসা এবং হেফাজতে ইসলামকে একটি চিহ্নিত মহল তাদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নিজেদের এজেন্ডা বাস্তবায়নের গভির ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।

এসবের নেতৃত্বে রয়েছে মূলত হেফাজতে ইসলামের কিছু নেতা এবং কিছু চিহ্নিত চরমপন্থি ও উগ্রবাদি।’

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো সংবাদ