নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিচ্ছে অন্যদৃষ্টি। আগ্রহীগন সিভি পাঠান- 0nnodrisrtynews@gmail.com
২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০১:০৮ অপরাহ্ন

নির্বাচন ইতিহাসে কলঙ্কজনক অধ্যায় ১৫ ফেব্রুয়ারির : প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক ।।
মঙ্গলবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১, ৪:৫০ অপরাহ্ন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারির নির্বাচন একটা কলঙ্কজনক অধ্যায় হিসেবে আজও রয়ে গেছে। জনগণের ভোট চুরি করে খালেদা জিয়া দাবি করেছিলেন, তিনি আবার প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষের তীব্র আন্দোলনের মধ্যে মাত্র দেড় মাসে খালেদা জিয়া পদত্যাগে বাধ্য হয়েছিলেন।

গতকাল দুপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সময় মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা বৃদ্ধি করে ২০ হাজার টাকা করার ঘোষণা দেন।
গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনসহ দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা প্রান্তে যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী মতবিনিময় করেন। গণভবন প্রান্তে অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া। ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন প্রান্তে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এবং মন্ত্রণালয়ের সচিব তপন কান্তি ঘোষ। তার আগে প্রধানমন্ত্রী ভার্চুয়ালি গণভবন থেকে যুক্ত হয়ে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টিবোর্ডের ৬৬তম সভায় অংশগ্রহণ করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ১৫ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়া একটা ভোটারবিহীন নির্বাচন করেছিলেন। কোনো রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করেনি। তিনি কতগুলো দল তৈরি করেছিলেন, ২ শতাংশ ভোটও পড়েনি। সারা বাংলাদেশে সেনাবাহিনী মোতায়েন করে জনগণের ভোট চুরি করা হয়। ভোট চুরি করে তিনি আবার দাবি করেন প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ তা মেনে নেননি। তীব্র আন্দোলন হয়। সে আন্দোলনে মাত্র দেড় মাসের মধ্যে অর্থাৎ ৩০ মার্চ খালেদা জিয়া পদত্যাগে বাধ্য হন। তিনি বলেন, সে সময় আন্দোলন-সংগ্রাম করতে গিয়ে আওয়ামী লীগের অনেক নেতা-কর্মীকেও জীবন দিতে হয়েছিল। তাদের সেই আত্মত্যাগ ও অবদানের কথা স্মরণ করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, আমরা আজকে জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছি। জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করতে পেরেছি। মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নতি করতে সক্ষম হয়েছি। মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান ফিরিয়ে দিতে পারছি। তিনি বলেন, যে জাতি বিজয়ী জাতি, বিজয়ী জাতি হিসেবে বিশ্বে যে সম্মান অর্জন করেছে; এই অর্জনের পেছনে অনেক ত্যাগ-তিতিক্ষা রয়েছে। আমাদের বহু নেতা-কর্মী জীবন দিয়েছেন, পঙ্গু হয়েছেন। প্রতিটি ক্ষেত্রেই অনেক ত্যাগ স্বীকার করেই অর্জন করতে হয়েছে, এটি হলো বাস্তব। ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্মম হত্যাকান্ডের কথা স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের দেশের মানুষের যে আকাক্সক্ষা ছিল, স্বাধীন জাতি হিসেবে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে মূলত সেই আকাক্সক্ষাটাও কিন্তু অপূর্ণ থেকে যায়। ১৫ আগস্টের পর ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে সংবিধান লঙ্ঘন করে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলের পালা শুরু হয়।

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ২০ হাজার টাকা করার ঘোষণা : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতাটা আর কারও হাত থেকে নিতে হবে না। এটা তাঁদের হাতে যেন সরাসরি পৌঁছে যায়, সেই ব্যবস্থাটাই আমরা নিচ্ছি। আমি খুবই আনন্দিত। আমাদের ডিজিটাল বাংলাদেশে এই ইলেকট্রনিক পদ্ধতি অর্থাৎ ডিজিটাল পদ্ধতির মাধ্যমে এই ভাতা দেওয়ার ব্যবস্থা নিতে পারছি। বীর মুক্তিযোদ্ধারা যাতে আরও সচ্ছলভাবে জীবন-যাপন করতে পারেন সেজন্য তাদের সম্মানী ভাতা ২০ হাজার টাকায় উন্নীত করব।

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো সংবাদ