নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিচ্ছে অন্যদৃষ্টি। আগ্রহীগন সিভি পাঠান- 0nnodrisrtynews@gmail.com
২৮ অক্টোবর ২০২০, ০২:৫৪ অপরাহ্ন

কিডনি জটিলতায় প্রাণ গেল বশেমুরবিপ্রবি’র ছাত্রের

ফয়সাল হাবিব সানি, স্টাফ রিপোর্টার
শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৯:১৭ অপরাহ্ন
কিডনি জটিলতায় প্রাণ গেল বশেমুরবিপ্রবি'র ছাত্রের। ফাইল ছবি

কিডনিজনিত সমস্যার কারণে চিকিৎসারত অবস্থায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের (সিএসই) ২০১৩-১৪ সেশনের শিক্ষার্থী সনেট দাস (২৬) মৃত্যুবরণ করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঢাকার বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

এদিকে, সনেটের অকাল মৃত্যুতে তার পরিবারসহ পুরো ক্যাম্পাসজুড়ে বিরাজ করছে শোকের মাতম। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ইতোমধ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে তাকে নিয়ে বিভিন্ন আবেগঘন পোস্ট।

পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের আশিকুর রহমান নামের এক শিক্ষার্থী সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, `একসাথে এক বাসায় থেকেছি, আপনার বিরুদ্ধে বিন্দুমাত্র অভিযোগ নাই। এতো তাড়তাড়ি হারিয়ে যাবেন কখনো কল্পনা করতে পারিনি সনেট দাদা।’

শিহার সোহান নামের একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী তার নিজস্ব টাইমলাইনে লিখেছেন, `অনেকক্ষণ ধরে চেষ্টা করলাম ঘটনাটা দুঃস্বপ্ন বানানোর জন্য। অনেকক্ষণ ধরে অপেক্ষায় ছিলাম কোনো এক মিরাক্কেলের জন্য। আমার ভাইটা কি আসলেই পৃথিবীতে নেই?? কেউ কি একজন বলবে না যে এটা মিথ্যা সংবাদ?

ফারজানা অমিতা নামের এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই বিভাগেরই একজন প্রাক্তন শিক্ষার্থী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার অভিমত ব্যক্ত করেছেন এভাবেই, `বেঁচে আছি, এ শব্দ দুটোই এ মুহূর্তে সবচেয়ে তাৎপর্যময়। ফানুসের মতো হাওয়ায় উড়তে উড়তে একসময় মিলিয়ে যেতে হবে এটাই ধ্রুব সত্য। সনেট অনেক ভালো থাকিস।’

মুখে সবসময় এক চিলতে হাসি লেগে থাকতো সনেট দাসের। প্রাণোবন্ত আর ভ্রমণপিপাসু এই ছেলেটা যে এতো সহজেই সকলকে ছেড়ে অজানার দেশে পাড়ি জমাবেন তা যেন সত্যিই অনাকাঙ্খিত আর ছিলো সকলের ভাবনারও বাইরে। উল্লেখ্য, হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পাবার পর বাগেরহাটের নিজ এলাকায় তার শেষকৃত্য অনুষ্ঠিত হবে বলে পরিবারসূত্রে জানতে পারা গেছে।

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো সংবাদ